আশিস মণ্ডল, বীরভূম:  রেশনে কুপন বিলিতেও কি স্বজনপোষণ চলছে? বিডিও অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন শ'তিনেক পরিযায়ী শ্রমিক। বিডিও-র আশ্বাস শেষপর্যন্ত আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেন তাঁরা। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মুরারই-এ।

আরও পড়ুন: রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মার, হাওড়ায় আক্রান্ত তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান

লকডাউনের জেরে কাজ  হারিয়ে কোনওমতে পরিযায়ী শ্রমিকরা ফিরেছে নিজেদের এলাকায়। কিন্তু ঘটনা হল, তাঁদের বেশিরভাগ রেশন কার্ড নেই। তাহলে বিনামূল্য চা-ডাল পাবেন কী করে! যাঁদের রেশন কার্ড নেই, তাঁদের কুপন বিলি করার কথা ঘোষণা করে রাজ্য সরকার।

বীরভূমের মুরারই ২ নম্বর ব্লকের জাজিগ্রামের পরিযায়ী শ্রমিকদের অভিযোগ, রেশন কার্ড রয়েছে, এমন পরিবারকে কুপন দিয়েছেন স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য। এমনকী, বাড়ি বসেই কুপন পেয়েছেন অনেকেই। কিন্তু তাঁরা কুপন পাননি। প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলার দিকে বিডিও অফিসে ঘেরাও করেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। সুমিত মজুমদার নামে এক পরিযায়ী শ্রমিক বলেন, 'জাজিগ্রামে পঞ্চায়েত সদস্য পাঁচজন। বিডিও অফিস থেকে ওই এলাকার জন্য যে কুপন বরাদ্দ করা হয়েছিল, তা প্রকৃত প্রাপকরা পাননি। যাঁরা বিডিও অফিস দখল করে পঞ্চায়েত নির্বাচনে কাউকে মনোনয়ন জমা দিতে দেয়নি সেই সমস্ত পরিবারকে কুপন দেওয়া হয়েছে। অথচ তাদের রেশন কার্ড রয়েছে।' বিক্ষোভ চলাকালীন বিডিও নিজে অফিসের  বাইরে এসে সকলকে কুপন দেওয়ার আশ্বাস দেন। এরপর ঘেরাও প্রত্যাহার করে নেন বিক্ষোভকারীরা।

আরও পড়ুন: ফের করোনা সংক্রমণের শিকার স্বাস্থ্যকর্মী, আতঙ্কের পারদ চড়ল রামপুরহাটে

মুরারই ২ নম্বর ব্লকের বিডিও অমিতাভ বিশ্বাস বলেন,  'প্রথম ধাপে ৫৪০০ কুপন ছাড়া হয়েছে। তাই যাঁরা এসেছিলেন তাঁদের বলেছি রেশন কার্ড থাকা সত্ত্বেও কুপন পেয়েছেন এমন কিছু নির্দিষ্ট নাম দিন। তাহলে আমাদের তদন্ত করতে সুবিধা হবে। তবে পরের ধাপে প্রত্যেকে যাতে কুপন পায় তার ব্যবস্থা করা হবে।' কিন্তু রেশন রয়েছে, এমন পরিবারও কুপন পেলেন কী করে? বিডিও বলেন,   'প্রত্যেকে পঞ্চায়েত থেকে আবেদন করা হয়েছিল। সেই আবেদন ব্লক এবং খাদ্য দফতর খতিয়ে দেখে কুপন দিয়েছে।'