বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-শুভেন্দু তৃণমূলে থাকার যে আশা ছিল। এখন তা নেই। সম্প্রতি দলের গোপন বৈঠক প্রকাশ্যে আসায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন শুভেন্দু। মধ্যস্থতাকারী সৌগত রায়কে একসঙ্গে কাজ করতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। এই অবস্থায় শুভেন্দুকে নিতে হতাশ সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায়। কী বললেন তিনি ?

আরও পড়ুন-অবশেষে পথ চলা শুরু করল মাঝেরহাট ব্রিজ, উদ্বোধনের পর পায়ে হেঁটে পরিদর্শন মমতা

''শুভেন্দু চলে গেলে দলের কোনও ক্ষতি হবে না। তবে, সেদিনের বৈঠকের পর তাঁর অবস্থানে আমি হতাশ। কারণ, আমরা একসঙ্গে অনেকদিন রাজনীতি করেছি। অনেক লড়াইয়েও সামিল হয়েছি''। বৃহস্পতিবার হাওড়ায় এক দলীয় কর্মসূচি থেকে শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে এমনই মন্তব্য করলেন রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী তথা হাওড়া সদর তৃণমূলের চেয়ারম্যান অরূপ রায়। পাশাপাশি, সদ্য বিজেপিতে যোগদানকারী মিহির গোস্বামীর শুভেন্দুকে ফোন করা নিয়েও মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, ''কে কাকে ফোন করছেন, তা নিয়ে আমরা মাথা ঘামাতে নারাজ। তবে, বৈঠকে দ্বন্দ মিটেছে শুনে খুশি হয়েছিলাম। ফের তা মাথাচাড়া দেওয়ায় আমরা দুঃখ পেয়েছি''।

আরও পড়ুন-'আমি বাংলার সন্তান, ভারতের সন্তান, এটাই আমার পরিচিতি', নীরবতা ভেঙে মন্তব্য শুভেন্দুর

অন্যদিকে, বালির বিধায়ক বৈশাখী ডালমিয়াকে নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মন্ত্রী অরূপ রায়। সম্প্রতি, একটি ভিডিওতে বৈশাখী দাবি করেন, ''এরা দেশের প্রধানমন্ত্রীকেই যখন বহিরাগত বলেন তখন আমি তো কোন ছাড়''। এ প্রসঙ্গে অরূপ রায় বলেন, ''আমরা বহিরাগতকে বহিরাগতই বলবঅ। প্রধানমন্ত্রী বহিরাগত, তাই বলা হয়। শুধু উনি নন, অমিত শাহ, কৈলাশ বিজয়বর্গীয় সহ যারাই বাইরে থেকে এসেছেন তাঁরাই বহিরাগত।