পণের দেওয়া খাট মনমতো হয়নি। এই অভিযোগে এক মাসের নববধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামী-সহ শ্বশুররবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের মোথাবাড়ি থানার গীতামোড় এলাকায়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত স্বামী এবং তার বাড়ি লোকজন। 

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত তরুণীর নাম তৃপ্তি মণ্ডল (২২)। এক মাস আগে কালিয়াচক থানার সুজাপুর পঞ্চায়েতের বাসিন্দা তৃপ্তির সঙ্গে বিয়ে হয় মোথাবাড়ির বাসিন্দা অচিন্ত্যর মণ্ডলের। বিয়েতে পণ হিসেবে জামাইকে মোটরবাইকস, নগদ ছাড়াও ঘরের আসবাবপত্র দিয়েছিলেন তৃপ্তির বাবা নগেন মণ্ডল। 

অভিযোগ, পণের খাট ভাল হয়নি এই অভিযোগে বিয়ের কয়েকদিন পর থেকেই তৃপ্তির উপরে অত্যাচার শুরু করে তাঁর স্বামী। অত্যাচার এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে এরই মধ্যে একবার তৃপ্তিকে তাঁর বাপের বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়। এর পর দুই পরিবারের মধ্যস্থতায় ফের শ্বশুরবাড়িতে ফেরেন তৃপ্তি। কিন্তু তার পরেও ফের তৃপ্তির উপরে অত্যাচার শুরু হয় বলে অভিযোগ। 

তৃপ্তির পরিবারের দাবি, বৃহস্পতিবার তৃপ্তিকে প্রথমে শ্বাসরোধ করে খুন করে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তার পরে ঘটনাকে আত্নহত্যা প্রমাণ করতে তৃপ্তির দেহ ঘরের মধ্যে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দাদের থেকে খবর পেয়ে তৃপ্তির বাপের বাড়ির লোকজন মোথাবাড়িতে এসে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। খবর পেয়ে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। তৃপ্তির স্বামী-সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।