আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: ঘরের দেওয়ালে বিষ্ঠা, পান আর গুটকার পিকে ভরে গিয়েছে চারপাশ। এমনকী, ভেঙে দেওয়া হয়েছে বাথরুম দরজা ও পর্দা স্ট্যান্ডও! পরিযায়ী শ্রমিকেরা চলে যাওয়ার পর এমনই হাল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের। বিডিও-কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের আধিকারিক। বীরভূমের মল্লারপুরের ঘটনা।

আরও পড়ুন: অবশেষে খুলল দিঘার মৎস্য নিলাম কেন্দ্র, প্রথম দিন দেখা মিলল না ইলিশের

লকডাউন জারি হওয়ার কাজ হারিয়ে দলের পরিযায়ী শ্রমিক ফিরেছেন রাজ্যে। তখন কোয়ারেন্টাইন সেন্টার খোলার জন্য বিভিন্ন লজ, ও বেসরকারি সংস্থার গেস্ট হাউসও দখল নেয় প্রশাসন। সেই তালিকায় ছিল বীরভূমের মল্লারপুরে জাতীয় সড়ক লাগোয়া স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের চারতলা গেস্ট হাউসটিও। কোয়ারেন্টাইন সেন্টার খুলে ধাপে ধাপে আনা হয় পরিযায়ী শ্রমিকদের। কিন্তু তাঁরা চলে যাওয়ার পর গেস্ট হাউসের হাল দেখে চক্ষুচড়ক গাছ কর্তৃপক্ষের! স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি সোমা পাঠক বলেন, 'আমরা প্রথমে গেস্ট হাউস দিতে চায়নি। প্রশাসক একপ্রকার জোর করেই ঘর নিয়েছে। কিন্তু ঘর ছেড়ে দেওয়ার পর পরিষ্কার করার কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। নিজেরাই ঘর পরিষ্কার করতে গিয়ে দেখি, দেওয়ালে বিষ্টা, বাথরুমের দরজা ভাঙা দেওয়া হয়েছে। ছবি-সহ বিডিও-র কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি।'

আরও পড়ুন: মালদহ শহরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, ছিন্নভিন্ন হয়ে গেল টোটো চালকের দেহ

ঘটনার সত্য়তা স্বীকার করে নিয়েছেন ময়ুরেশ্বর এক নম্বর ব্লকের বিডিও গোরাচাঁদ বর্মণ। তাঁর আশ্বাস, অভিযোগ পেয়েছি। সমস্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। কারা এমন কান্ড ঘটাল, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।'