করোনা আক্রান্ত ছিলেন না তো? কর্তব্যরত অবস্থায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। শেষপর্যন্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন এক নার্স। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। মুখে কুলুপ এঁটেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন:আমফান যেতেই এবার তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল, সরাসরি প্রাক্তন কাউন্সিলারের সভায় হামলা

বয়স মাত্র কুড়ি বছর। বছর দেড়েক আগে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে নার্সিং অফিসারের চাকরি পেয়েছিলেন সুনীতা মণ্ডল। অকালে চলে গেল প্রাণবন্ত মেয়েটি। জানা গিয়েছে, ২৯ মে রাতে যখন হাসপাতালে ডিউটি করছিলেন, তখন আচমকাই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন সুনীতা। শুরু হয় পেটে ব্যথা, সঙ্গে বমি। এরপর ওই নার্সকে ভর্তি করা হয় মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিট বা সিসিইউ-তে রেখে রোগীর চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি। শারীরিক অবস্থায় আরও অবনতি হওয়ায় শেষপর্যন্ত তাঁকে কলকাতায় স্থানান্তরিত করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

পরিবারে লোকেদের দাবি, এসএসকেএম ও এনআরএস হাসপাতালে কোনও শয্যা খালি ছিল না। তাই রাতে আর সুনীতাকে কলকাতার নিয়ে যাওয়ার ঝুঁকি নেননি তাঁরা। ওই নার্সকে ভর্তি করা হয় স্থানীয় একটি নার্সিংহোমে। চিকিৎসকরা জানান, কিডনি বিকল হয়ে গিয়েছে! ডায়ালোসিসও করা হয়। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ঘটনার দিন রাতেই মারা যান মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নার্সিং অফিসার সুনীতা মণ্ডল।

আরও পড়ুন: তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হরিপাল, রাস্তা তৈরিকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার

উল্লেখ্য, এ রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায়। মারণ ভাইরাস ঢুকে পড়েছে মুর্শিদাবাদেও। মেডিক্যাল কলেজে নার্স কি সংক্রমিত হয়েছিলেন? লালারস বা সোয়াব পরীক্ষার সুযোগ পাওয়া যায়নি। তবে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন পরিবারের লোকেরা।