বর্ষবরণের রাতেই ঘটে গেল বাইক দুর্ঘটনা, প্রাণ হারালেন বছর কুড়ির যুবক। এবং তাঁর বন্ধুও গুরুতর আহত। বসিহাট মহাকুমার হাসনাবাদ থানার তকিপুর এলাকায় মধ্য় রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। উৎসবের রাতে, প্রচন্ড  গতিবেগে নিয়ে মোটরবাইক সজোরে ধাক্কা মারে লরিতে। ঘটনাস্থলেই মৃত্য়ু হয় তাঁর। পুলিশ ইতিমধ্য়েই মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুন, চুরি কবি বিনয় মজুমদারের সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার, শুরু তদন্ত


রাজ্য সরকারের এত প্রচার 'সেভ লাইফ সেভ ড্রাইভ' এর জন্য মানুষ যে এখন সচেতনতার অভাব। তার জ্বলন্ত প্রমাণ বছর কুড়ি এই যুবকের মৃত্যু। গতকাল মঙ্গলবার রাতে, বছরের শেষ দিন। তার উপর রাত বাড়ার পর রাস্তাঘাট কম বেশি ফাঁকাই ছিল। সবাই একসঙ্গে উৎসবে মেতে ছিল। আর সেই জন্য় রাস্তায় বেপয়োরা গাড়ির সংখ্য়াও ছিল বেশী। এই কারণেই আগে থেকে পুলিশ প্রশাসন সর্তকতা এবং কিছু নিয়ম মেনে চলতে বলেছিল বারবার। তার মধ্য়ে অন্য়তম হেলমেট না পড়ে, বাইক চালানো কিংবা সিট বেল্ট না পরে গাড়ি চালানো। আর সেই মরণ ফাঁদেই পা দিল বছর কুড়ির ওই যুবক।

আরও পড়ুন, ঋতুস্রাব নিয়ে কুসংস্কার নয়, নতুন বছরে এটাই শপথ 'প্যাডম্যান' সুমন্ত স্যরের

সূত্রের খবর,  দুই বন্ধু  বিনা হেলমেটে মোটরবাইক নিয়ে সে সজোরে ধাক্কা লরিতে। জানা গিয়েছে, বছর কুড়ির যুবকের নাম কমল দাস। বাড়ি হাসনাবাদ থানা বিনোদ কলোনি পাড়ায়।  বর্ষবরণের উৎসবে মাতোয়ারা। গাড়ি  গতিবেগ উৎসবের রাত্তিরে বেপয়োরা মোটরবাইক চালানো। সজোরে ধাক্কা লরিতে। তারপরে ওই দুই যুবকের মাথায় কোন হেলমেট ছিল না।  আহত আরও এক যুবক বসিরহাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি অবস্থা আশঙ্কাজনক ।হাসনাবাদ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বসিরহাট জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ।লরি থেকে আটক করে তদন্ত শুরু করেছে হাসনাবাদ থানার পুলিশ।