আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: সাধারণ মানুষের চাপে অবশেষে টনক নড়ল প্রশাসনের। রামপুরহাটে দুটি ওভারলোডেড ডাম্পার আটকালেন খোদ পুরসভার বিদায়ী চেয়ারম্যান অশ্বিনী তেওয়ারি। ডাম্পারের কাগজপত্র বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: নদীর উপর সেতুতে ধস, আতঙ্ক ছড়াল হুগলির আরামবাগে
 

কোনটা মুর্শিদাবাদের পথে, তো কোনটা আবার বর্ধমান হয়ে কলকাতার দিকে। রাতে শ'য়ে শ'য়ে ওভারলোডেড ডাম্পার, এমনকী লরিও চলে বীরভূমের রামপুরহাট শহরে। গাড়ির চাপে ভাঙছে রাস্তা, ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের। পুলিশকে বহুবার জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। সমস্যা কী আদৌও মিটবে? আশা কার্যত ছেড়েই দিয়েছিলেন এলাকার মানুষ।

আরও পড়ুন: ভয় দেখিয়ে নিজের মেয়েকে দিনের পর ধর্ষণ, বাবার বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ নরেন্দ্রপুরে

জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে তখন রাস্তার পাশে নিকাশি নালা তৈরির কাজ চলছিল। স্থানীয় শ্রীফলা রাস্তা দিয়ে দুটি ওভারলোডেড ডাম্পার ঢুকে রামপুরহাট শহরে। স্থানীয় বাসিন্দাদের চাপে দুটি গাড়িকেই আটকান পুরসভার বিদায়ী চেয়ারম্যান তথা প্রশাসক অশ্বিনী তেওয়ারি। তিনি বলেন, 'চার কোটি টাকা ব্যয়ে শহরের রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু রাত দিন ওভারলোড পাথর, বালি বোঝাই যাতায়াত করার ফলে রাস্তা ভেঙে পড়ছে। দুটি ডাম্পার আটকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি। এবার পুলিশ আইন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। বিষয়টি কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানানো হয়েছে।' বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, 'ওভারলোডিং-এর বিষয়টি দেখে পরিবহণ দপ্তর। আমরা খতিয়ে দেখছি।' জেলা পরিবহণ আধিকারিক মৃন্ময় মজুমদার বলেন, 'প্রায় সময় ওভারলোডের অভিযান চলছে। নজর আরও বাড়াতে হবে।'