মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া: দু'দিনেই চুরির কিনারা করে ফেলল পুলিশ। নদিয়ায় তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে লুটপাঠের জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হল তাঁর ভাইপোকে। ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হল চুরি যাওয়া নগদ টাকাও। তেহট্ট থানার এসআই অভ্র বিশ্বাসের নেতৃত্বে তদন্তে মিলল সাফল্য।

আরও পড়ুন: প্লাস্টার করা হাতে পাইপ বেয়ে পালানোর চেষ্টা রোগীর, ধুন্ধুমারকাণ্ড ঝাড়গ্রাম হাসপাতালে

ঘটনার সূত্রপাত শুক্রবার। নদিয়ার পলাশিপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক তাপস সাহা থাকেন তেহট্টে। সকালে তাঁর বাড়ির একটি চাবি হারিয়ে যায়। বিধায়কের দাবি, চাবিটি পরিবারের লোক এবং বাড়ির পরিচারক-পরিচারিকাদের কাছে থাকত। কোথায় গেল চাবিটা? খোঁজাখুঁজি করেও রাত পর্যন্ত চাবিটির আর সন্ধান পাওয়া যায়নি।  ঘড়িতে তখন রাত দুটো। খোয়া যাওয়া চাবি দিয়ে দরজা খুলে এক ব্যক্তি বিধায়কের বাড়িতে ঢোকে বলে অভিযোগ। লুটপাঠ চলে বাড়ি  ও বাড়ি লাগোয়া অফিসে। পলাশিপাড়ার বিধায়ক তাপস সাহার দাবি, অফিসের আলমারি থেকে গুরুত্বপূর্ণ নথি ও বাড়ি কয়েকটি দামী জিনিসও চুরি হয়ে গিয়েছে। শনিবার সকালে ঘটনা জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়।

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীতে করোনা আতঙ্ক, কেন্দ্রীয় অফিস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত কর্তৃপক্ষের

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ অনুমান ছিল, বিধায়কের পরিচিত কোনও ব্যক্তি এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত। সে যে বিধায়কের ভাইপো, তা কে জানত! সোমবার তেহট্টের বেতাই বাজার এলাকায় থেকে অভিযুক্ত সায়ক সাহাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে উদ্ধার হয় চুরি যাওয়া টাকাও। ঘটনার সঙ্গে আর কেউ জড়িত ছিল কিনা, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।