দু' হাজার বা পাঁচশো টাকার জালনোট এতদিন মাঝেমধ্যেই উদ্ধার হত। বিশেষত মালদহ এবং মুর্শিদাবাদের মতো বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া জেলাগুলিতে এই সমস্যা নতুন কিছু নয়। কিন্তু পুলিশ- প্রশাসনের উদ্বেগ বাড়িয়ে এবার মালদহ থেকে উদ্ধার হল ৫০ এবং ২০০ টাকার বিপুল সংখ্যক জাল নোট। যার মোট মূল্য প্রায় এক লক্ষ সত্তর হাজার টাকা। 

জেলা পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে মালদহের ইংরেজবাজার থানা এলাকার ঝলঝলিয়াতে জাল টাকার লেনদেনের খবর ছিল। গোপন সূত্রে সেই খবর পেয়ে সেখানে হানা দিয়ে রাজা সিং পাল নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরে ফেলে পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে ছ'শোটি দুশো টাকার জাল নোট উদ্ধার হয়।  এর পরে ওই অভিযুক্তকে জেরা করে রাতেই বৈষ্ণবনগর থানা এলাকায় আরও এক জায়গায় হানা দেয় পুলিশ। সেখান থেকেও এক হাজার পিস পঞ্চাশ টাকার জাল নোট উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয় কফিকুল শেখ নামে এক ব্যক্তিকে। 

পুলিশ জানিয়েছে,ধৃত রাজা সিং পালের বাড়ি মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে। অন্য জন কফিকুল শেখের বাড়ি মালদহের বৈষ্ণবনগর থানার সব্দলপুর অঞ্চলের মোহনপুর গ্রামে। ধৃত দু' জনকে এ দিনই মালদহ জেলা আদালতে তোলা হয়।

তবে এই বিপুল পরিমাণ জাল টাকা কোথা থেকে এল, এই চক্রের সঙ্গে বাংলাদেশের জাল নোট পাচারকারীরা যুক্ত কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে এখন থেকে যে জাল নোট চক্রের দাপট আটকাতে আরও সতর্ক থাকতে হবে, তা স্বীকার করে নিয়েছেন পুলিশ কর্তারা।