অন্তঃসত্ত্বা বধুকে  বেধড়ক মারধর এবং রেয়াত পেলেন না স্বামীও। ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ রেল স্টেশনে। অন্তঃসত্ত্বা বছর উনিশের শাবানার বিবি অসুস্থ অবস্থায়  স্টেশনের উপর বমি করলে, তাঁকে বেশ কয়েকজন মহিলা ও পুরুষ বেধড়ক মারধর করে। ছাড় পায়নি তাঁর স্বামীও।

আরও পড়ুন, ফের পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ও ঘূর্ণাবর্তের ভ্রুকুটি, বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে গোটা রাজ্য

সূত্রের খবর,   বছর উনিশের শাবানা বিবি ও স্বামী ইমরান গাজী   হাসনাবাদ থানার জয় গ্রামের বাসিন্দা।  এদিন হাসনাবাদ শিয়ালদা লোকাল ট্রেন ধরার জন্য হাসনাবাদ এক নম্বর প্ল্যাটফর্মের আসেন। অন্তঃসত্ত্বা বছর উনিশের শাবানার বিবির হঠাৎ শরীর খারাপ লাগে, গা গুলিয়ে ওঠায় সামলাতে না পেরে স্টেশনের উপরেই বমি করেন তিনি। এই ঘটনায়, বেশ কয়েকজন মহিলা ও পুরুষ তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। প্রথমে শাবানার বিবির স্বামী, ইব্রাহিম গাজী প্রতিবাদ করলে তাঁকে মারধর করা হয়। এরপর মহিলা নিজে বলে 'আমি অন্তঃসত্ত্বা, আমার বমি করার নোংরা জায়গা এখুনি দিয়ে ধুয়ে দিচ্ছি'। কিন্তু তাতেও রেয়াত করা হয় না ওই দম্পতিকে। অন্তঃসত্ত্বা বধূকে  বেধড়ক মারধর করে তারা। এরপরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

আরও পড়ুন, দম থাকলে গ্রেফতার করে দেখা, পুলিশকে চ্যালেঞ্জ রোদ্দুর রায়ের

সূত্রের খবর, যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে হাসনাবাদ থানায় ও রেল পুলিশ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই দম্পতি। এবং যখন এই ঘটনা ঘটেছিল তখন একবারও কেউ সাহায্য়ের জন্য় কিংবা রক্ষা করতে এগিয়ে আসেননি। আক্রান্তদের পাশে দাঁড়ানোর প্রয়োজন মনে করেনি, বলে অভিযোগ। আক্রান্ত দম্পতির ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হাসনাবাদ থানা ও রেল পুলিশ। যারা এই ঘটনা ঘটেছে তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। দম্পতি জানান, এদিন হাসনাবাদ শিয়ালদা ডাউন লোকাল ধরার জন্য হাসনাবাদ স্টেশনে আসছিলেন। তাদের বাড়ি রাজারহাট লেকটাউনে। তখনই এ ঘটনা ঘটে এই ঘটনার জেরে উত্তেজনা তৈরি হাসনাবাদ স্টেশন চত্বরে।  আরও একবার রেলের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন দেখা দিল।

আরও পড়ুন, মেট্রো রেলে জয় মোহনবাগান ধ্বনি, পুলিশি হেনস্থার অভিযোগ সমর্থকদের