রাজনীতির লড়াই থেকে ছাড় পেলেন না এক অন্তঃসত্ত্বাও। অভিযোগ, তৃণমূল সমর্থকের স্ত্রী ওই মহিলার পেটে লাথি মারেন এক বিজেপি সমর্থক। চাঞ্চল্যকর এমনই অভিযোগ উঠেছে বসিরহাটের সন্দেশখালির ন্যাজাট থানা এলাকায়। কয়েকদিন আগেই তুমুল রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল এই এলাকা। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, ন্যাজাটের রাজবাড়ি এলাকার বাসিন্দা গোপাল মণ্ডল এবং আনন্দ মণ্ডল এলাকার সক্রিয় তৃণমূল কর্মী। বাড়িতে বেড়া দেওয়া নিয়ে শনিবার তাঁদের সঙ্গে স্থানীয় বিজেপি নেতা নারায়ণ পাইক এবং তাঁর দলবলের বচসা বাঁধে। এই সময় নারায়ণবাবু এবং তাঁর অনুগামীরা গোপাল মণ্ডল এবং তাঁর ভাইকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। বাধা দিতে গেলে গোপালবাবুর স্ত্রী ছ' মাসের অন্তঃসত্ত্বা ইলা মণ্ডলকে তাঁরা ধাক্কাও দেয়। 

আরও পড়ুন- 'শাখা, সিঁদুরের সাজে দারুণ মানিয়েছে নুসরতকে', প্রশংসায় বাবুল, দেখুন ভিডিও

শনিবারের মতো গণ্ডগোল মিটলেও রবিবার ফের বেড়া  দেওয়া নিয়ে অশান্তি বাঁধে। অভিযোগ ইলা দেবী এবং গোপালবাবুর মা বেড়া দিতে গেলে ফের দলবল নিয়ে চড়াও হন নারায়ণ পাইক। অন্তঃসত্তা ইলাদেবীর পেটে লাথি মেরে তাঁর গলা  চেপে ধরা হয় বলে অভিযোগ। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় এর পরে ইলাদেবীকে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং তার পরে কলকাতার ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়। 

ঘটনা ন্যাজাট থানায় অভিযোগ জানানো হলেও এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। কয়েকদিন আগেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়েছিল সন্দেশখালি। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার রাজনৈতিক বিদ্বেষের শিকার হলেন এক অন্তঃসত্ত্বা।