আগেই ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন টাকা ফেরত দেওয়ার। শেষ পর্যন্ত সারদা গোষ্ঠীর থেকে পারিশ্রমিক বাবদ পাওয়া টাকা ফেরত দিয়ে দিলেন তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়। মঙ্গলবারই ব্যাঙ্ক ড্রাফটের মাধ্যমে ইডি দফতরে টাকা পৌঁছে দিয়েছেন বীরভূমের সাংসদ। 

গত জুলাই মাসে শতাব্দী-সহ সারদা কাণ্ডে অভিযুক্ত বেশ কয়েকজনকে ডেকে পাঠিয়েছিল ইডি। যদিও ইডি দফতরে হাজিরা দেননি তিনি। এর পরে ফের অগাস্ট মাসের শুরুতে অভিনেত্রী- সাংসদকে ডেকে পাঠানো হয়। তখনই ইডি- কে সারদার থেকে পাওয়া টাকা ফেরতের প্রস্তাব দেন অভিনেত্রী- সাংসদ। তবে শতাব্দীর আগে প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মিঠুন চক্রবর্তীও সারদার থেকে পারিশ্রমিক হিসেবে পাওয়া এক কোটি টাকারও বেশি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। ২০১৫ সালে ওই টাকা ফিরিয়েছিলেন তিনি। এবার একই পথে হেঁটে সারদা তদন্ত থেকে অব্যাহতি পাওয়ার চেষ্টা করলেন শতাব্দী। 

সারদার অন্যতম ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর ছিলেন শতাব্দী রায়। সংস্থার বিভিন্ন বিজ্ঞাপন এবং অনুষ্ঠানে দেখা যেত তাঁকে। বিনিময়ে সারদার থেকে মোটা টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন তিনি। একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, শতাব্দী রায় সারদার থেকে মাসে দু' লক্ষ টাকা করে পারিশ্রমিক পেতেন বলে তদন্তকারীদের কাছে দাবি করেছেন সারদা কর্ণধার সুদীপ্ত সেন।  সেই সূত্রেই তাঁকে জেরা করতে চেয়েছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।