শুক্রবার মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনার সাক্ষী থাকল মুর্শিদাবাদ। বাইকের সঙ্গে মারুতির সংঘর্ষে নয়নজুলিতে পড়ে যায় একটি মারুতি ভ্য়ান। স্থানীয় বাসিন্দাদের চেষ্টায় ক্রেনের সাহায্যে গাড়িটিকে নয়নজুলি থেকে উদ্ধার করা হয়। গাড়িতে থাকা যাত্রীদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

চাঞ্চল্যকর এই দুর্ঘটাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের হরিহরপাড়া থানার ডলটনপুর এলাকায়। জানাগেছে, গঙ্গার পূন্য স্নান করে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনাটি ঘটে। একটি বাইকের সঙ্গে মারুতি ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইক ও মারুতি দুটোই নয়নজুলিতে পড়ে যায়। মারুতি গাড়ির মধ্যে ছিলেন একই পরিবারের ছয় জন সদস্য। স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পেয়ে ক্রেনের সাহায্যে দুর্ঘটনাগ্রস্ত মারুতিটিকে ডাঙা তোলে। গাড়ির মধ্যে থাকা যাত্রীদের বের করা হয়। দুর্ঘটনায় আহতদের প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে। পরে তাঁদের মধ্যে তিন জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আরও পড়ুন-মেদিনীপুরে শক্তি বাড়ছে সিপিএমের, বিক্ষোভ মিছিলে দশ হাজার লোক

কীভাবে ঘটল এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা?

ডোমকলের ভরতিপুর এলাকা থেকে একটি পরিবারের কয়েকজন সদস্য পুজোর সামগ্রী কেনার জন্য বহরমপুরে যায়। সেখানে পুজোর জন্য প্রয়োজনীয় যাবতীয় সামগ্রী কিনে গঙ্গায় স্নান করেন। এরপর তাঁরা বাড়ির দিকে রওনা দেন। কিন্তু মাঝপথে বাইকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় মারুতির। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুটি গাড়িই নয়নজুলিতে পড়ে যায়। অবশেষে, স্থানীয় বাসিন্দাদের তৎপরতায় নয়নজুলি থেকেো উদ্ধার হয় যাত্রী বোঝাই লরি। দুর্ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলেন, কনিকা দাস, অনদী দাস, গাড়ির চালক রাম ঘোষ এবং বাইক চালক সুবীর ঘোষ। জখম কনিকা দাস বলেন, ''ভাবতে পারছিনা না মুহূর্তের মধ্যে এত বড় দুর্ঘটনা ঘটে গেল। এই দুর্বিসহ স্মৃতি ভুলবার নয়''।