আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: ব্যবধান চারদিনের। ভাইয়ের মৃত্যুর পর এবার সাপের ছোবল আর এক দাদাকেও! আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি ভর্তি হাসপাতালে। আতঙ্কে বাড়ি ছেড়েছেন পরিবারের লোকেরা।  ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মুরারই-এ।

আরও পড়ুন: সিভিক ভলান্টিয়ারদের 'লাঠিপেঠা', বিএসএফ জওয়ানদের 'কীর্তি'তে শোরগোল মালদহে

মৃতের নাম নজরুল শেখ। বাড়ি, মুরারই ১ নম্বর ব্লকের ধৃতোড়া গ্রামে মিঞা পাড়ায়। বাবা-মা, দুই ভাই, দুই বউদি ও এক ভাইজিকে নিয়ে সংসার। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, শুক্রবার রাতে বিছানায় ঘুমন্ত অবস্থায় নজরুলের হাতের আঙুলে ছোবল মারে বিষধর সাপ। রাতেই তাঁকে ভর্তি করা হয় মুরারই গ্রামীণ হাসপাতালে। অবস্থার অবনতি হওয়ার কয়েক ঘণ্টার পর রোগীকে স্থানান্তরিত করা হয় রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। শনিবার সকালে মারা যান বছর সতেরোর ওই কিশোর। 

আরও পড়ুন: জোড়া ঘূর্ণাবর্তের জের, প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস বাংলায়

এদিকে সোমবার সকালে বাড়ির উঠানে একটি বিষধর সাপকে পিটিয়ে মেরে ফেলেন নজরুলের দাদা রবিউল। কিন্তু তাতেও রক্ষা মিলল কই! মঙ্গলবার রাতে যখন বিছানা ঘুমিয়ে ছিলেন, তখন রবিউলকেও ছোবল মারে সাপ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি ভর্তি মুরারই গ্রামীণ হাসপাতালে। এরপর আতঙ্কে কার্যত বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। আশ্রয় নিয়েছেন অন্যত্র। মুরারই ২ নম্বর ব্লকের বিডিও নিশীথ ভাস্কর পাল বলেন, 'বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে এরকম হয়ে থাকলে বন দপ্তরকে জানিয়েও সাপ ধরার ব্যবস্থা করা হবে। খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি।