লকডাউনে দুর্ভোগের শেষ নেই। গত চার দিন ধরে আসানসোলের খনি এলাকায় গরিব মানুষদের রান্না করা খাবার খাওয়াচ্ছেন এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবী জয়ন্ত শর্মা। বিলি করছেন মাস্ক, যোগান দিচ্ছেন ওষুধেরও।

আরও পড়ুন: লকডাউনে মানবিক প্রশাসন, বহিরাগত শ্রমিকদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করলেন বিডিও

এ রাজ্যে তো বটেই, করোনা আতঙ্কে আপাতত লকডাউন চলবে গোটা দেশে। মঙ্গলবারই লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সত্যি কথা বলতে, যেভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তাতে আর কোনও উপায় ছিল না। কিন্তু প্রতিদিনের রোজগারে যাঁদের দিন চলে, তাঁদের কী হবে! ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনেকেই গরিব মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু তা বলে হাজার পাঁচেক মানুষকে রোজ রান্না করা খাবার খাওয়ানো! শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও, বাস্তবে তা করিয়ে দেখাচ্ছেন আসানসোলের বিশিষ্ট সমাজসেবী জয়ন্ত শর্মা।



আরও পড়ুন: লকডাউনের জেরে বন্ধ দোকান, গ্রামে গ্রামে ঘুরে মানুষকে সচেতন করছেন দর্জি

আরও পড়ুন: করোনা যুদ্ধে ছবি হাতিয়ার, মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে টাকা দিতে চায় স্কুলছাত্রী

কেউ হয়তো খনি এলাকায় দিনমজুরি করেন, তো কেউ শ্রমিকের কাজ করেন অন্যের জমিতে। লকডাউনের জেরে কাজ হারিয়েছেন সকলেই। আসানসোলের বারবনি থানার নন্দন, পাকুরিয়া, তালকানালি, আমডিহা, বিলা, পর্বতপুর, ভুরাদঙ্গল এলাকার কোনও মানুষ কিন্তু অভুক্ত নেই। একদিন-আধদিন নয়, রবিবার থেকে তাঁদের রান্না খাবারের জোগান যাচ্ছেন সমাজসেবী জয়ন্ত শর্মা। তাঁর মানবিক উদ্যোগ হাসি ফুটিয়েছেন 'দিন আনি দিন খাই' মানুষগুলির মুখে।