দাবানল অব্য়াহত। এখনও জ্বলছে শুশুনিয়া পাহাড়। মঙ্গলবার রাতে দমকলের একটি ইঞ্জিন গিয়েছিল বটে। তবে বলাই বাহুল্য়, এত বড় আগুন নেভানোর জন্য় তা নেহাতই অপর্যাপ্ত। তাই যথারীতি আগুন নেভাতে না-পেরেই ফিরে তা ফিরে এসেছে। এই পরিস্থিতিতে সোশাল মিডিয়াল একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, হাতে কিছু ডালপাতা নিয়ে এতবড় আগুন নেভানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন দুই যুবক। 

আরও পড়ুন: করোনার মাঝেই কম্পন আতঙ্ক, জোড়া ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল বাংলা

 

মঙ্গলবার সন্ধে থেকেই বাঁকুড়ার শুশুনিয়া পাহাড়ে আগুন দেখতে পান স্থানীয়রা। রাতের দিকে তা আরও বাড়তে থাকে।  খবর পেয়ে দমকলের মাত্র একটি ইঞ্জিন যায় ঘটনাস্থলে। যথারীতি ব্য়র্থ হয়ে ফিরে আসে তা। প্রশ্ন উঠেছে আগুন লাগলো কীভাবে? স্থানীয়রা কেউ কেউ বলছেন, ইচ্ছে করেই আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর ওই জঙ্গল-পাহাড়ে আগুন লাগানো খুব একটা কঠিন কিছু নয়। শুকনো পাতার ওপর একটা জ্বলন্ত বিড়ি ফেলে দিলেও যথেষ্ট।  শোনা যাচ্ছে, পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তবে তাতে করে আগুন লাগার কারণ বেরিয়ে আসবে খুব-একটা আশা করছেন না কেউ।
এদিকে ওই পাহাড়-জঙ্গলে ঘুরে বেড়ায় অসংখ্য় বন্য়প্রাণী। আশঙ্কা করা হচ্ছে, তাদের অনেকেই বেঘোরে মারা পড়বে। যেমন সাম্প্রতিক কালে  হয়েছিল আমাজন আর অস্ট্রেলিয়ার অরণ্য়ে।  বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ার জঙ্গলে আগুন লাগার পর  পুড়ে মরে যায় সেখানকার অসংখ্য় জীবজন্তু। আধপোড়া অবস্থায় অনেককে উদ্ধার করা হয়। শুশুনিয়াতেও তেমনটাই আশঙ্কা করছেন অনেকে। শুধু তাই নয়, আশঙ্কা করা হচ্ছে, জঙ্গল লাগোয়া বাসস্থানেও যেকোনও সময়ে  আগুন ছড়িয়ে পড়তে পারে। 

আরও পড়ুন: লকডাউনের মাঝে ইঁটভাটায় 'মজুত' বোমা, হুলুস্থুলকাণ্ড নরেন্দ্রপুরে

এদিকে এই পরিস্থিতিতে সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি ভিডিয়ো।  যেখানে দেখা যাচ্ছে, জঙ্গলের ভেতর গাছের ডালপালা নিয়ে দুই যুবক আগুন নেভানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এত বড় আগুন মাত্র দুজনের পক্ষে নেভানো  সম্ভব নয় জেনেও অ-সম্ভবের এই চেষ্টা দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা।