তাহলে কি শেষপর্যন্ত সিবিআই তদন্তই হচ্ছে? হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়কের মৃত্যুর তদন্তে নিয়ে এবার কেন্দ্র ও রাজ্যকে নোটিশ পাঠাল সুপ্রিম কোর্টে। জল্পনা তুঙ্গে রাজনৈতিক মহলে।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর বিরূদ্ধে পোস্ট, গ্রেফতার বিজেপি আইটি সেলের কনভেনর

দিল্লিতে গিয়ে বছর খানেক আগে সিপিএম ছেড়ে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। মিশুকে স্বভাবের জন্য এলাকায় জনপ্রিয়তাও ছিল  যথেষ্ট। গত ১৩ জুলাই সাতসকালে উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বালিয়া মোড়ে বন্ধ দোকানে সামনে থেকে উদ্ধার হয় বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের ঝুলন্ত দেহ। ঘটনাস্থল থেকে তাঁর বাড়ির দূরত্ব খুব বেশি নয়। পরিবারের দাবি, আগের দিন গভীর রাতে কেউ বা কারা বিধায়ককে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর আর ফেরেননি। পরিকল্পনামাফিক খুনের অভিযোগ তুলেছেন নিহতের পরিজনেরা।  ঘটনায় রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। 

আরও পড়ুন: প্রয়াত প্রবীণ সিপিএম নেতা শ্যামল চক্রবর্তী, করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি ছিলেন হাসপাতালে

বিজেপি বিধায়ক খুন হয়ে গেলেন নাকি আত্মহত্যা করলেন? সিবিআই তদন্তের দাবিতে কলকাতা হাইকোটের মামলা করেন প্রয়াত বিধায়কের স্ত্রী চাঁদিমা রায়। জরুরি ভিত্তিতে শুনানির পর অবশ্য সেই আবেদন খারিজ করে দেন বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ। রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থা সিআইডি-কে তদন্তভার দেয় আদালত। এরপর বিধায়কের মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের আর্জি জানিয়ে মামলা দায়ের করা সুপ্রিম কোর্টে। সেই মামলাতেই এবার কেন্দ্র ও রাজ্যকে নোটিশ পাঠাল শীর্ষ আদালত। আশার আলো দেখছে বিজেপি ও মৃতের পরিবার।