কাটমানি নিয়ে এবার চুনোপুঁটিদের ছেড়ে তৃণমূলের রাঘব বোয়ালদের তাড়া করবে সাধারণ মানুষ। মঙ্গলবার এমনই দাবি করলেন সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষ। 

এ দিন বারাসত আদালতে পুরনো একটি মামলায় হাজিরা দিতে এসে কাটমানি ইস্যুতে তৃণমূলকে আক্রমণ করেন সুশান্তবাবু। তিনি বলেন, 'একটা বাড়ি যখন পরিষ্কার করা হয়, তখন উপরতলা থেকে পরিষ্কার করতে করতে নীচে আসে। কেউ কোনও দিন বিশ্বাস করবে যে নীচ থেকে পরিষ্কার করার পরে উপরে পরিষ্কার করা হবে? এখন মানুষ তৃণমূলের চুনোপুঁটিদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। কিন্তু এই ক্ষোভ চুনোপুঁটি নেতাদের বিরুদ্ধেই আটকে থাকবে না। তৃণমূলের রাঘববোয়ালদেরও মানুষ তাড়া করবে, মিলিয়ে নেবেন।

শুধু কাটমানি কাণ্ডই নয়, এ দিন সিঙ্গুর ইস্যু নিয়েও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন সুশান্তবাবু। তিনি বলেন, 'সিঙ্গুরে আশি শতাংশ মানুষ চাষি জমি দিতে রাজি ছিলেন। তার পরেও উনি একটা তৈরি হয়ে যাওয়া শিল্পকে ওখান থেকে তাড়িয়েছিলেন। এর জন্য ওনাকে প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে। তখন যিনি মুখ্যমন্ত্রীর দু' নম্বর ছিলেন, তিনি এখন অন্য কথা বলছেন কেন? সিঙ্গুরে যেখানেই ভোট হচ্ছে, সেখানেই তৃণমূল হারছে। এটাই তৃণমূলের ভবিতব্য।'

প্রাক্তন বিধায়ক এবং সিপিএমের একসময়ের দাপুটে নেতা সুশান্তবাবু এবার লোকসভা নির্বাচনেও অনেক জায়গাতে প্রচার করেছেন। দলের খারাপ সময় নিয়ে অবশ্য তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি। গড়বেতা কঙ্কাল কাণ্ডে অভিযুক্ত সুশান্ত ঘোষ বলেন, 'দল নিয়ে যেখানে সিদ্ধান্ত হয়, তার মধ্যে আমি থাকি না। ফলে এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারব না। তবে নির্বাচনে জেতা, হারার মধ্যে দিয়ে বামপন্থার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করা যায় না।'