করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে বুধবারই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল তারকেশ্বর মন্দির। তবে এবার আতঙ্কের জেরে বন্ধ হয়ে গেল তারাপীঠ মন্দিরও। বৃহস্পতিবার মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন, করোনা মোকাবিলায় নয়া নির্দেশিকা, প্রতিটি হাসপাতালে ৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড

সূত্রের খবর, বুধবার সিউড়িতে জেলাশাসকের প্রশাসনিক দফতরে পুরোহিত, মৌলবী, সেবাইতদের নিয়ে বৈঠক হয়। উল্লেখ্য়, বৈঠক শুরুর আগে নিয়ম মেনেই হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে সকলকে হাত পরিষ্কার করে কনফারেন্স হলে প্রবেশ করে। জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা সকলের কাছে ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যবিধি ও নির্দেশিকা মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন। তাতে তারাপীঠ মন্দিরের সেবাইত কমিটির সম্পাদক ধ্রুব চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন,  'তারাপীঠে যাঁরা প্রসাদ বিতরণের জন্য ভান্ডারা দেন, তাঁদের চলতি মাসে ভান্ডারা না দেওয়ার অনুরোধ করব আমরা। পাশাপাশি আমাদের মন্দিরে নিজস্ব মাইক থেকে মানুষকে বারেবারে সচেতন করা হবে। '

আরও পড়ুন, পাশ করলেই খুলবে দরজা, নবান্নে বসল নয়া মেশিন

অপরদিকে, পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে বর্গভীমা মন্দিরে পুষ্পাঞ্জলি ও ভোগ বিতরন বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করল মন্দির কর্তৃপক্ষ।  দেবী বর্গভীমা সতীর একান্ন পীঠ এর একটি অন্যতম পীঠ।প্রতিদিন কয়েক হাজার ভক্তের সমাগম হয় এখানে।প্রতিদিন নিয়ম নিষ্ঠার সাথে মায়ের ভোগ ও পুঞ্জাপলি দেয় ভক্তরা।করোনা আতঙ্কের জেরে নিত্য পুষ্পাঞ্জলি ও সর্ব সাধারনের জন্য আপাতত ভোগ বন্ধ রাখা হয়েছে। কিন্তু ভক্তেরা মায়ের মন্দিরে পুজো দিতে পারছেন।

আরও পড়ুন, আপাতত স্বস্তি, করোনা আক্রান্তের বাবা-মায়ের রিপোর্ট নেগেটিভ