কাট মানি বিক্ষোভে ক্রমশই চাপ বাড়ছে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে। এবার সালিশি সভায় পর পর উঠে দাঁড়িয়ে হাতজোড় করে কাটমানি নেওয়ার কথা স্বীকার করলেন অন্তত তিনজন তৃণমূল নেতা। 

ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের কৈচর দু' নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে। অভিযোগ, স্থানীয় তৃণমূলের ব্লক অঞ্চল সভাপতি রাঘব চন্দ্র ঘোষ দীর্ঘদিন ধরে গ্রামের একশো দিনের কর্মীদের জব কার্ড নিজের কাছে রেখে দিতেন। ওই প্রকল্পের যাঁরা উপভোক্তা, সেই শ্রমিকদের মজুরি থেকে ওই তৃণমূল নেতা এবং তাঁর সঙ্গীরা কাটমানি নিতেন বলে অভিযোগ। এর পাশাপাশি সরকারি বাড়ি তৈরির টাকা পেয়েছেন যাঁরা, তাঁদের থেকেও কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ ওঠে ওই নেতাদের বিরুদ্ধে। 

আরও পড়ুন- কাটমানি! কোথায় সেটা, প্রশ্ন তুলে অবাক ব্যাখ্যা অনুব্রতর

কাটমানি নিয়ে বিক্ষোভ শুরু হতেই অভিযুক্ত নেতাদের বিরুদ্ধেও বিক্ষোভ শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত এ দিন গ্রামের মধ্যেই অভিযুক্ত অঞ্চল সভাপতি এবং তাঁর দুই অনুগামীকে নিয়ে সালিশি সভা বসে। সেখানে ভিড় করেন কয়েকশো গ্রামবাসী। চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত কাটমানি নেওয়ার কথা স্বীকার করে নেন ওই নেতারা। ক্ষুব্ধ দাবি মেনে হাতজোড় করে পর পর উঠে দাঁড়িয়ে তাঁরা বলেন, 'টাকা নিয়ে আমরা অন্যায় করেছি, আর এমন ভুল হবে না।' কাটমানি হিসেবে নেওয়া টাকা ফিরিয়ে দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাঁরা।