দলের কর্মীর উপর হামলার অভিযোগ তুলেছে দু'পক্ষই। তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল দক্ষিণ ২৪ পরগণার গোসাবা। আহত চারজন। তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে গোসাবা গ্রামীণ হাসপাতালে। ঘটনায় দু'জনকে আটক করেছে পুলিশ। 

গোসাবার বালি এক নম্বর পঞ্চায়েতে সত্যনারায়ণপুর গ্রামে থাকেন নেপাল মণ্ডল ও অমুল্য গায়েন। এলাকায় দু'জনেই বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত। তৃণমূলের অভিযোগ, শুক্রবার রাতে আরও বেশ কয়েকজনের সঙ্গে দলের কর্মী সদানন্দ মণ্ডলের বাড়িতে চড়াও হন নেপাল ও অমূল্য। তখন বাড়িতে একাই ছিলেন সদানন্দের স্ত্রী। আলমারির চাবি দিতে অস্বীকার করলে, তাঁকে বেধড়ক মারধর, এমনকী শ্লীলতাহানিও করা হয়। শনিবার গোসাবা থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআর করেন স্থানীয় তৃণমূলকর্মী। এরপর রাতে সংঘর্ষের জড়িয়ে পড়েন দু'দলের সমর্থকরা।

আরও পড়ুন: পুলিশের নাকা চেকিংয়ে উদ্ধার প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র, গ্রেফতার ২

গেরুয়াশিবিরের পাল্টা দাবি, স্রেফ বিজেপি করার অপরাধেই নেপাল মণ্ডল ও অমূল্য গায়েনকে পরিকল্পনামাফিক ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন তৃণমূল কর্মীরা। হামলার করার তো প্রশ্নই নেই। বরং দলের ওই দুই কর্মীর বাড়িতে হামলা চালিয়েছেন রাজ্যের শাসকদলের কর্মীরাই। বেধড়ক মারধর করা হয়েছে তাঁদের, রেহাই পাননি নেপাল মণ্ডলের স্ত্রী ও মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী মেয়েও। ঘটনার তদন্তে নেমেছে গোসাবা থানার পুলিশ।  উল্লেখ্য, এর আগে বেশ কয়েকবার তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়িয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বাসন্তীকে। দিন কয়েক আগে রাতে বাড়ির ফেরার পথে গুলিবিদ্ধ দলের এক যুবনেতা।