পত্রলেখা বসু চন্দ্র, পূর্ব বর্ধমান: এতদিন চলছিল কাটমানি বিক্ষোভ। এবার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে গেলেন এক তৃণমূল নেতা। অভিযুক্ত নেতা এবং নিজের স্ত্রীকে হাতেনাতে ধরে ফেলে দড়ি বেঁধে রাখলেন ক্ষুব্ধ স্বামী। 

আরও পড়ুন- ১৯১৩ থেকে পরিবেশ রক্ষায় তাঁর সরকার, মুখ ফস্কালেন মমতা, দেখুন ভিডিও

এমনই অভিযোগ উঠেছে পূর্ব বর্ধমানের আউসগ্রামের তাঁতপুকুর গ্রামে। কিছুদিন ধরেই নিজের স্ত্রীর সঙ্গে তৃণমূলের স্থানীয় দাপুটে নেতা জয়দীপ পালের বিবাহবর্হিভূত সম্পর্কের কথা শুনছিলেন অভিযুক্ত গৃহবধূর স্বামী। এর পর থেকেই তক্কে তক্কে ছিলেন ওই ব্যক্তি। শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিজের বাড়ির সামনে তৃণমূল নেতা জয়দীপের বাইক দেখে সন্দেহ হয় তাঁর। ঘরে গিয়ে নিজের স্ত্রীর সঙ্গে ওই তৃণমূল নেতাকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখে ফেলেন বলে অভিযোগ করেন গৃহবধূর স্বামী। এর পরেই দু' জনকে ঘরে আটকে রেখে প্রতিবেশীদের ডাকেন তিনি। 

আরও পড়ুন- দাপুটে নেতা হলেন 'চোরা গোপাল', কাটমানি ফেরত চেয়ে অভিযোগ পূর্ব মেদিনীপুরে

রাতভর দু' জনকে আটকে রাখার পরে শুক্রবার সকাল থেকে ওই তৃণমূল নেতা এবং তাঁর প্রেমিকা গৃহবধূকে কোমরে দড়ি পরিয়ে গ্রামের মাঝে বসিয়ে রাখা হয়। গৃহবধূর স্বামী দাবি করেন, ওই তৃণমূল নেতাকে তাঁর স্ত্রীকে বিয়ে করতে হবে এবং তাঁর তিন সন্তানের লেখাপড়ার দায়িত্বও নিতে হবে। 


এই ঘটনার পর স্পষ্টভাবে কিছু বলতে চাননি অভিযুক্ত জয়দেব পাল। অভিযুক্ত ওই তৃণমূল নেতা বিল্বগ্রাম অঞ্চলের তৃণমূলের পাঁচ নম্বর কমিটির অন্যতম সদস্য। শেষ পর্যন্ত গ্রামবাসীদের মধ্যস্থতায় দু' পক্ষে রফা হওয়ার পরে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা এবং গৃহবধূকে ছাড়া হয় বলেই খবর।