ভরদুপুরে সমবায় সমিতির অফিসে হাজির স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা। দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, তিনি আকণ্ঠ মদ্য়পান করেছেন। তারপর? অফিসে রীতিমতো ভাঙচুর চালালেন তিনি, হুমকি দিলেন সমবায় সমিতি কর্মীদেরও! ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার কোতুলপুরে। বেজায় অস্বস্তিতে রাজ্যের শাসকদল।

আরও পড়ুন: বাড়ির গেটম্যান করোনা পজিটিভ, কোয়ারেন্টাইনে তৃণমূল সাংসদের পরিবারের সদস্যরা

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার দুপুরে। কোতুলপুরের কারকবেড়িয়া সমবায় সমিতিতের অফিসে তখন কাজে ব্যস্ত কর্মীরা। আচমকাই অফিসে ঢোকেন তৃণমূল নেতা বাসুদেব হাজরা। তিনি স্থানীয় লাউগ্রাম অঞ্চলের দলের আহ্বায়কও বটে। কিন্তু  নেশার ঘোরে তখন কি আর মাথার ঠিক আছে! মদ্যপ অবস্থায় সমবায় সমিতির অফিসে শাসকদলের ওই নেতা রীতিমতো তাণ্ডব চালান বলে অভিযোগ। জানা গিয়েছে, সেই ঘটনার ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন কারকবেড়িয়া সমবায় সমিতিরই এক কর্মী। ভিডিওটি ভাইরাল হতে সময় লাগেনি।

ভিডিওটিতে স্পষ্ট দেখা গিয়েছে, সমবায় সমিতির অফিসের কম্পিউটারটি আছাড় মেরে ফেলে দিচ্ছেন তৃণমূল নেতা বাসুদেব হাজরা। তারপর পা দিয়ে সেটি গুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন! শেষপর্যন্ত অবশ্য তিনি নিজেই সমবায় সমিতির অফিস থেকে বেরিয়ে যান।  নজিরবিহীন এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার কোতুলপুরে। দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা।

আরও পড়ুন: গ্রাহকের নামে একাধিক 'ভুয়ো রেশন কার্ড', প্রতিবাদ করায় 'প্রাণনাশের হুমকি' বিজেপি নেতাকে

কী বলছেন অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা বাসুদেব হাজরা? তাঁর সাফাই, কারকবেড়িয়া সমবায় সমিতিকে নাকি দীর্ঘদিন ধরেই দুর্নীতি চলছে। মেয়াদ শেষ হওয়া যাওয়া সত্ত্বেও ক্ষমতা হস্তান্তর করছেন না ম্যানেজার। এসবেরই প্রতিবাদ করতেই সমিতির অফিসে গিয়েছিলেন তিনি।