তৃণমূলের একুশে জুলাইয়ের সমাবেশ বলে কথা। অন্যান্যবার এই দিনে জেলায় তৃণমূল নেতা কর্মীদের পাওয়াই দুষ্কর হয়ে দাঁড়ায়। কারণ দলীয় সমাবেশে যোগ দিতে অধিকাংশেরই গন্তব্য হয় কলকাতা। কিন্তু এবারের ছবিটা সম্পূর্ণ উল্টো। একদিকে যখন কলকাতায় তৃণমূলের শহিদ সমাবেশ চলছে, তখন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দিলেন বেশ কিছু কর্মী, সমর্থক। একই সঙ্গে সিপিএম ছেড়েও গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন অনেকে। 

আরও পড়ুুন- 'হিন্দুরা মরছে মরুক', দিলীপের ভাইরাল ভিডিওকে নিশানা মমতার, বক্তব্যে অনড় বিজেপি নেতা

শনিবার বাঁকুড়ার ওন্দায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের উপস্থিতিতে সাড়ে তিনশো পরিবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিল বলে দাবি করে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। তার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই সেই ওন্দাতেই ফের তৃণমূলের সংগঠনে ফাটল ধরালো বিজেপি। বাঁকুড়ার ওন্দা থানার খামারবেড়িয়া গ্রামে তৃণমুল এবং সিপিএম ছেড়ে বিজেপি-তে নাম লেখালো একশোটি পরিবার। 

আরও পড়ুন- প্রসেনজিৎ, ঋতুপর্ণাদের ডেকে বিজেপিতে যোগ দিতে বলছে ইডি, চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মমতার

এ দিন খামারবেড়িয়ার বিজেপি তৃণমূল এবং সিপিএম থেকে আসা দলের নতুন সদস্যদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপি-র বিষ্ণুপুর জেলার সহ- সম্পাদক অমরনাথ শাখা এবং বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁয়ের স্ত্রী সুজাতা খাঁ।

এ বারের লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়ার দু'টি আসনেই জয়লাভ করেছে বিজেপি। তার পর থেকেই শাসক দল ছেড়ে পদ্ম শিবিরের দিকে ঝুঁকছেন বহু কর্মী, সমর্থক। এবারের একুশে জুলাইয়ের সমাবেশেও তার প্রভাব স্পষ্ট। অন্যান্য বাঁকুড়া জেলা থেকে যে সংখ্যক কর্মী, সমর্থক ধর্মতলার সমাবেশে যোগ দিতে আসেন, এ বছর সেই সংখ্যা ছিল অনেকটাই কম।