করোনার আতঙ্ক, লকডাউনে দুর্ভোগও বাড়ছে আমজনতার। এরইমধ্যে কিন্তু রাজনৈতিক সংঘর্ষের বিরাম নেই রাজ্যে।  শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে প্রাণ গেল এক তৃণমূল কর্মীর। ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের খড়গ্রামে।

আরও পড়ুন: অশান্ত ভদ্রেশ্বরের তেলিনিপাড়া, গুজব রুখতে হুগলিতে বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা

জানা গিয়েছে, খড়গ্রামের চন্দ্রসিংহবাটি গ্রামে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠীর বিবাদ দীর্ঘদিনের। মঙ্গলবার রাতে সেই বিবাদ চরমে পৌঁছায়। সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দুই গোষ্ঠীর লোকেরা। ধারালো অস্ত্রের এলোপাথারি কোপে গুরুতর আহত হন বাক্কার শেখ নামে এক তৃণমূল কর্মী।  তাঁকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় কান্দি মহকুমা হাসপাতালে। কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর শারীরিক অবস্থার ক্রমশই অবনতি হতে থাকে। শেষপর্যন্ত আক্রান্ত বহরমপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।  বহরমপুরে নিয়ে যাওয়ার পথে মারা যান বাক্কার শেখ।  খড়গ্রাম থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা। অভিযুক্তরা সকলেই পলাতক। মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার শবরী রাজকুমার বলেন, 'পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের সন্ধান চলছে।'  অশান্তি এড়াতে পুলিশ পিকেট বসেছে খড়গ্রামের চন্দ্রসিংহবাটি গ্রামে।

আরও পড়ুন: ক্লাব ঘরে লুকিয়ে 'অচেনা' সরীসৃপ, আতঙ্ক ছড়াল মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনায়

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে কান্দি রাস্তায় দাঁড়িয়ে চকোলেট বিলি করতে গিয়ে আক্রান্ত হন এক কংগ্রেস কর্মী। তৃণমূল কর্মী তাঁকে রীতিমতো গণধোলাই দেন বলে অভিযোগ। ঘটনায় নাম জড়ায় স্থানীয় কাউন্সিলরেরও।