আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  পারিবারিক বিবাদের বলি দুধের শিশু! নিখোঁজ হওয়ার ছ'ঘণ্টা বন্ধ আলমারিতে মিলল নিথর দেহ। মৃতের জেঠা ও জেঠিমাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বীরভূমের বোলপুরে।

আরও পড়ুন: করোনার থাবা, বীরভূমে বন্ধ হয়ে গেল আরও দুটি পুরসভা

স্থানীয় সূত্রে খবর, বোলপুরের কাশিপুরে গ্রামে থাকেন মুরশেদ খান। তাঁর শিশুপুত্র আকিবের বয়স মোটে দু'বছর।  শুক্রবার বিকেলের পর থেকে শিশুটির আর খোঁজ মিলছিল না। কোথায় গেল? হন্যে হয়ে ছেলে খোঁজাখুঁজি করতে শুরু করেন পরিবারের লোকেরা। এমনকী, বাড়ি লাগোয়া পুকুরে ডুবুরিও নামানো হয়। কিন্তু আকিবের সন্ধান মেলেনি। শেষপর্যন্ত সন্ধ্য়ার দিকে যখন শিশুটির জেঠিমা তাজমিরা বিবির ঘরে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়, তখন ভেঙে পড়েন ওই মহিলা। প্রতিবেশীদের চাপে আলমারি থেকে আকিবের নিথর দেহ বের করে দেন তিনি।  ঘটনাটি জানাজানি ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। 

আরও পড়ুন: হেমতাবাদের বিধায়কের মৃত্যুর তদন্ত, আরও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল সিআইডি

পরিবারের লোকেদের দাবি, শুক্রবার বিকেলে তাজমিরা বিবির ছেলের সঙ্গে খেলছিল আকিব। খেলতে খেলতে দুই শিশুর মধ্যে মারামারি হয়। তখন আকিবের মাথায় আঘাত করে তাজমিরা। অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পরে হাত-পা বেঁধে তাকে আলমারিতে ঢুকিয়ে বন্ধ করা দেওয়া হয়। খবর পেয়ে বিশাল বাহিনীকে নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন পুলিশের পদস্থ আধিকারিকরা।  প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, হয় দীর্ঘক্ষণ আলমারিতে আটকে রাখার কারণে শ্বাসরোধ হয়ে শিশুটি মারা গিয়েছে অথবা তাকে মেরে আলমারিতে ঢুকিয়ে রাখা হয়েছিল। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে শিশুটির জেঠা লালচাঁদ খান ও জেঠিমা তাজমিরা বিবিকে।