একে গরমের ছুটি, তার সঙ্গে ইদ এবং জামাই ষষ্ঠীর মজা উপভোগ। সবমিলিয়ে ভিড় উপচে পড়েছে দিঘায়। তার সঙ্গে মেঘলা আবহাওয়ায় দিঘার সমুদ্র আরও উপভোগ্য হয়ে উঠেছে। আর এই ভিড়ের মধ্যেই অসতর্কতার জেরে সমুদ্র তলিয়ে মৃত্যু হল এক পর্যটকের। মৃতের নাম মহম্মদ কোয়াইশ (২২)। তাঁর বাড়ি কলকাতার ভগবান মণ্ডল স্ট্রিটে।

পুলিশ সূত্রে খবর, গত কয়েকদিন ধরেই প্রবল ভিড় হচ্ছে দিঘায়। সপ্তাহান্তে দিঘায় পর্যটকের সংখ্যা এক লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে বলে দাবি পুলিশ, প্রশাসনের। গত কয়েকদিন ধরেই দক্ষিণবঙ্গের আকাশ মেঘলা। শুক্রবার সকাল থেকে দিঘার সমু্দ্রও বেশ উত্তাল হয়ে ছিল। তার মধ্যেই শুক্রবার দুপুরে নিউ দিঘার ক্ষণিকা ঘাট ও পুলিশ হলিডে হোমের মাঝামাঝি জায়গায় পুলিশি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা সমু্দ্রের উত্তাল ঢেউয়ের মধ্যেই  স্নান করতে নামেন ওই যুবক। 

অথচ তার আগেই বেশ কয়েকবার ওই জায়গাতেই বেশ কয়েকবার  পর্যটকদের সমু্দ্র থেকে তুলে দেয় পুলিশ। কিন্তু কোনওভাবে নজর এড়িয়ে উত্তাল সমু্দ্রে নেমে পড়েন ওই যুবক। তার পরেই আচমকা জলের তোড়ে তলিয়ে যায় সে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। নিখোঁজ যুবকের খোঁজে নুলিয়াদের নামানো হয়। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই যুবকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। 

পুলিশ জানিয়েছেন, মোট ৯ জন বন্ধু মিলে বৃহস্পতিবার নিউ দিঘার একটি হোটেলে উঠেছিলেন মহম্মদ কোয়াইশরা। এ দিন দুপুরের পর তাঁরা সমু্দ্রে স্নান করতে যান। পুলিশের নিষেধ উপেক্ষা করে বেপরোয়া হতে গিয়েই বিপদ ডেকে আনলেন ওই যুবক। পুলিশের অভিযোগ, বার বার নিষেধ করা সত্ত্বেও একশ্রেণির পর্যটক কিছুতেই সতর্ক হচ্ছেন না।