আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: করোনা আতঙ্কে কি এবার প্রশাসনিক কাজকর্মও শিকেয় উঠবে! সংক্রমণের আশঙ্কায় আরও দুটি পুরসভা বন্ধ হয়ে গেল বীরভূমে। আপাতত এক সপ্তাহ জরুরি পরিষেবা ছাড়া আর কোনও কাজ হবে না রামপুরহাট ও সাঁইথিয়া পুরসভায়।

আরও পড়ুন: করোনাভাইরাসের থাবা ব্লক অফিসে, পুরুলিয়ায় আক্রান্ত জয়েন্ট বিডিও

ডানা গিয়েছে,  রামপুরহাট পুরসভায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন চতুর্থ শ্রেণীর এক কর্মী। পুরসভার কর আদায় বিভাগে চাকরি করেন তিনি। হাল্কা জ্বরের উপসর্গ ছিল, করোনা সন্দেহে লালারস পরীক্ষা করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এরপর আর ঝুঁকি নেয়নি প্রশাসন, শুক্রবার থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রামপুরহাট পুরসভা। পুর ভবন ও লাগোয়া এলাকা জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে জোরকদমে।  রামপুরহাট পুরসভা প্রশাসক  অশ্বিনী তেওয়ারি বলেন, 'জল, বিদ্যুৎ, রাস্তা সাফাইয়ের মতো জরুরী পরিষেবা চালু রাখা হয়েছে। পুরসভাকে জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে। সাতদিন পর ফের পুরসভা খোলা হবে।' 

আরও পড়ুন: হেমতাবাদের বিধায়কের মৃত্যুর তদন্ত, আরও এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল সিআইডি

এদিকে আবার সাঁইথিয়া পুরসভার এক সুপারভাইজারও করোনা আক্রান্ত। ফলে জরুরি পরিষেবা চালু রেখে সাতদিনের জন্য পুরসভা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।  এর আগে বীরভূমেরই নলহাটি পুরসভার এক সাফাইকর্মীর করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপর পুরসভার বাকী কর্মী, পদাধিকারী, এমনকী তাঁদের পরিবারের লোকেদের লালারস পরীক্ষা হয়। সংক্রমিত হয়েছেন ৯ জন। সেই তালিকায় রয়েছেন খোদ ভাইস চেয়ারম্যান তৌহিদ শেখও।