আশঙ্কা ছিলই। তাহলে এ রাজ্যেও ঢুকে পড়ল পঙ্গপাল? শালবনের হাজার হাজার পতঙ্গের হানায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে বাঁকুড়ায়। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে বনদপ্তর।

আরও পড়ুন: পরিযায়ীদের নিয়ে আতঙ্ক নয়, পাখিদের আগমনে খুশির হাওয়া রায়গঞ্জে

করোনা আতঙ্কের মাঝে নয়া বিপত্তি। গত বেশ কয়েক দিন ধরেই পঙ্গপালের উপদ্রব চলছে ভারতে। আফ্রিকা থেকে বালুচিস্তান হয়ে পঙ্গপাল বাহিনী প্রথমে ঢোকে রাজস্থানে। মরুরাজ্যে তাণ্ডব চালিয়ে মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, পাঞ্জাব ও  মহারাষ্ট্রে হানা দিয়েছে পঙ্গপালেরা। এবার কি তবে বাংলার পালা? আশঙ্কা কথা শুনিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বস্তত. ছোট ছোট ডানায় ভর করে পঙ্গপালের দল পৌঁছে গিয়েছে পড়শি রাজ্যে ঝাড়খণ্ডের সীমানায়। 

জানা গিয়েছে, বাঁকুড়ার রাধানগর লাগোয়া লখেশোলের শালবন এলাকায় পঙ্গপাল মতো দেখতে এক দেখতে এক ধরণের পতঙ্গ নজরে পড়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পতঙ্গগুলি সংখ্যায় প্রায় কয়েক হাজার। চোখের নিমেষে কাঁচা শালপাতা খেয়ে ফেলছে তারা! ওই এলাকায় এমনিতে চাষাবাদ যথেষ্ট ভালো হয়। লকডাউন ও আমফানের পর এবার যদি পঙ্গপাল হানা দেয়, তাহলে কি হবে? ঘটনাটি জানাজানি হতেই ছড়িয়েছে আতঙ্ক।
 

আরও পড়ুন: ঝাড়গ্রামে কালবৈশাখীর গ্রাসে ২৩ ছাগল, নিঃস্ব হতদরিদ্র একাধিক পরিবার

শালবনের জঙ্গলে পতঙ্গদের সমাবেশ ভাবিয়ে তুলেছে বনদপ্তরের আধিকারিকদেরও। প্রাথমিক তদন্তে বিশেষজ্ঞদের ধারনা, এই ধরণে পোকা বাঁকুড়া জেলার সর্বত্রই দেখতে পাওয়া যায়। তবে অতীতে এদের কখনও দলবদ্ধভাবে দেখা যায়নি। তাঁদের দাবি, উত্তর বা পশ্চিম ভারতে যে পঙ্গপালেরা হানা দিয়েছে, তাদের সঙ্গে এই পতঙ্কদের কোনও সম্পর্ক নেই।