দ্বৈপায়ন লালা, মালদহ:  নেশা বড় বিষম বস্তু! প্রতিবাদ করে শেষপর্যন্ত স্বামীর হাতেই খুন হয়ে গেলেন এক মহিলা। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহের বৈষ্ণবনগরে।

আরও পড়ুন: করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসতে 'বিলম্ব', হাসপাতালে যাওয়ার পথে রাস্তায় পড়ে মৃত্যু যুবকের

মৃতের নাম আয়েশা বিবি। বাড়ি, বৈষ্ণবনগরের বিহারী টোলা গ্রামে। বছর পনেরোর দাম্পত্য জীবন। এক মেয়ের মা তিনি। স্বামী রবিউল পেশায় রাজমিস্ত্রি। স্থানীয় সূত্রে খবর, বিয়ের পর থেকে নানা ধরণের নেশায় আসক্ত হয়ে পড়েন তিনি। স্বামীর নেশা করার একদমই পছন্দ ছিল আয়েশার। এই পরিবারের প্রায় অশান্তি হত। কিন্তু নেশার গ্রাস থেকে বেরিয়ে আসতে পারেননি রবিউল।

আরও পড়ুন: স্বাধীনতা দিবসে 'তেরঙ্গা মাস্ক', বিতর্ক তুঙ্গে বর্ধমানে

জানা গিয়েছে, ৩ অগাস্ট যখন ফের নেশা করে বাড়ি রবিউল, তখন প্রতিবাদ করেন আয়েশা। রাগের মাথায় স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে রবিউল কোপায় বলে অভিযোগ। রক্তাক্ত অবস্থায় ওই গৃহবধূর প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরে রোগীকে স্থানান্তরিত করা হয় মালদহ শহরের একটি নার্সিংহোমে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। চিকিৎসা চলাকালীন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মারা যান আয়েশা বিবি। এদিকে এই ঘটনার পর অভিযুক্ত রবিউলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। অভিযুক্তকে ঘটনার দিন রাতেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।