লকডাউনের মাঝেই সুখবরের অপেক্ষায় ছিলেন পরিবারের লোকেরা। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসায় গাফিলতিতেই কি ঘটল বিপত্তি? মা ও শিশুর মৃত্যুতে ভাঙচুর চলল হাসপাতালে। ধুন্ধুমারকাণ্ড উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে।

আরও পড়ুন: পারিবারিক অশান্তির জের, স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করল স্বামী

মৃতার নাম রঙ্গিলা বেগম। বাড়ি, ইসলামপুরের মহব্বতপুর গ্রামে। রবিবার রাতে অন্তঃস্বত্ত্বা ওই গৃহবধূকে আনা হয় ইসলামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সঙ্গে সঙ্গেই রোগীকে ভর্তিও করে নেওয়া হয়। কিন্তু তাঁর কোনও শারীরিক সমস্যা আছে, তা খতিয়ে দেখেননি চিকিৎসকরা। অন্তত তেমনই অভিযোগ পরিবারের লোকেদের। বাড়ির লোকেরা জানিয়েছেন, গভীর রাতে যখন প্রসব করানো হয়, ততক্ষণে গর্ভস্থ শিশুটি মারা গিয়েছে। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়, মা-এর শারীরিক অবস্থাও আশঙ্কাজনক। শেষপর্যন্ত সোমবার ভোর রাতে মারা যান রঙ্গিলা বেগম। ঘটনাটি জানাজানি হতে তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে হাসপাতাল চত্বরে।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কে নজরে পরিযায়ী শ্রমিকেরা, স্বাস্থ্য পরীক্ষার দাবি কংগ্রেস বিধায়কের

আরও পড়ুন: মালদহে রেশন 'পাচারের চেষ্টা' বানচাল, পিকঅ্যাপ ভ্যানে মিলল চাল ও আটা

জানা গিয়েছে, চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে সরকারি হাসপাতালে ভাঙচুর শুরু করেন মৃতের পরিজনেরা। কোনওমতে পরিস্থিতি সামাল দেন নিরাপত্তারক্ষীরা। ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অন্য রোগীরাও।  ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।