লকডাউনের মাঝেই বাড়ির বাইরে বেরিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু আর ফেরা হল না। ধর্ষণের পর নৃশংসভাবে খুন করা হল মহিলাকে! এবার উত্তর ২৪ পরগণার হাবড়ায়। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত।

আরও পড়ুন: ৫০ বছর বন দফতরের হয়ে কাজের রেকর্ড, চলে গেল মধুবালা

ঘটনার সূত্রপাত রবিবার দুপুরে। রোজকার মতোই সেদিনও দুপুরে খাওয়া-দাওয়া সেরে ঘাস কাটতে বেরিয়েছিলেন ওই মহিলা। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, প্রতিদিনই কাজ সেরে বিকেলের মধ্যে বাড়ির ফিরে আসতেন তিনি। কিন্তু ঘটনার দিন যখন সন্ধ্যায় পরেও যখন ফিরলেন না, তখন দুঃশ্চিন্তা বাড়ে পরিবারের লোকেরা। কোনও বিপদ হল না? মা-কে খুঁজতে বের হন ওই মহিলার ছেলে। জানা গিয়েছে, দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখুঁজির পর তাঁর নজরে পড়ে, স্থানীয় নাংলা বিল এলাকায় জঙ্গলের ভিতরে কিছু একটা পড়ে আছে। কাছে যেতেই দেখেন, মায়ের নলিকাটা দেহ! ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। খবর দেওয়া হয় হাবড়া থানায়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। মৃতদেহটি উদ্ধার করে পাঠানো হয় ময়নাতদন্তে।   

আরও পড়ুন: টানা ২ সপ্তাহ পর খুলল হাওড়া হাসপাতাল, করোনাকে হারিয়ে কাজে যোগ দিলেন সুপার

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে রাতে কৃষ্ণনগরের ভালুকা মাদারতলা এলাকায় রাস্তার পাশে এক মহিলার রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, মৃতার পিঠে ও মুখে গভীর আঘাতের চিহ্ন ছিল। শুধু তাই নয়, যে অবস্থায় মৃতদেহটি পড়েছিল, তাতে খুন করে ধর্ষণের করে খুনের সম্ভাবনাই বেশি। ঘটনার তিনদিন পর মৃতদেহটি শনাক্ত করেন পরিবারের লোকেরা। এবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল উত্তর ২৪ পরগণার হাবড়ায়ও।