শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-পাড়ার মধ্য়ে মদ বিক্রি করত স্ত্রী। তার জেরে পাড়াল মদ্যপ লোকেদের আনাগোনা বেড়ে গিয়েছিল। এর তীব্র জানিয়ে স্ত্রীর বিরুদ্ধে নিজেই অভিযোগ দায়ের করলেন স্ত্রী। এই কাজে সাহায্য করেছিলেন প্রতিবেশীরা। এমনই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট মহকুমার হাড়োয়া ব্লকে।

আরও পড়ুন-দুই দুষ্কৃতী দলের মধ্য়ে সংঘর্ষে আগুন-বোমাবাজি, উত্তপ্ত হয়ে উঠল নদিয়ার শান্তিপুর

পুলিশ সূত্রে খবর, হাড়োয়ার থাসবালান্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসবাটি গ্রামে ব্রাহ্মণপাড়ার বাসিন্দা বছর পঞ্চাশের মিনতী বিশ্বাস দীর্ঘদিন ধরেই এলাকায় বেআইনিভাবে মদের ব্যবসা চালাতেন। এলাকায় মদ্যপদের আনাগোনা বেড়ে যাওয়ায় প্রতিবাদ করেন স্থানীয়রা। প্রতিবেশীদের কথা শুনে তাঁর স্ত্রী মদ বিক্রি করতে মানা করতেন। কিন্তু মিনতী দেবী নামে ওই মহিলা কারোর কথায় না শুনে অবাধে মদ বিক্রি করছিলেন। ঘরের মধ্য়ে মদ বিক্রি হওয়ায় গভীর রাতে মদ্যপ যুবকদের আনাগোনা বেড়ে যায়। এর ফলে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন প্রতিবেশীরা। এরপর মিনতী দেবীর স্বামী পঞ্চাশ বছরের জগবন্ধু বিশ্বাস এবং প্রতিবেশী মিলে হাড়োয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এদিন রাতেই মিনতি বিশ্বাসের বাড়িতে হানা দেয় হাড়োয়া থানার পুলিশ। উদ্ধার হয় ৪০ লিটার মদ।

অরও পড়ুন-মাছ ধরার জালে হস্তিশাবকের মৃতদেহ, চাঞ্চল্য পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড়ে

স্বামীর অভিযোগে অন্যায়ভাবে মদ বিক্রিকে পুলিশ গ্রেফতার করায় হতবাক অনেকে। স্বামীর কাজের তীব্র প্রশংসা করলেন এলাকার মানুষ। মদ বিক্রির অভিযোগে ধৃত মহিলাকে বসিরহাট আদালতে তোলা হয়।