হতদরিদ্র বৃদ্ধার রাতরাতি ভোলবোদল। ৫২ কেজির ভোলা মাছ ধরে ভাগ্য ফিরল তাঁর। রাতারাতি লাখপতি হলেন তিনি। তাঁর মীন ধরার জালে উঠল অতিকায় মাছ। এত বড়মাপের মাছ দেখে হইচই পড়ে যায় গোটা এলাকায়। খবর পেয়ে ছুটে আসেন ব্যবসায়ীরা। বাজার দর উঠল ৩ লক্ষ টাকা।

আরও পড়ুন-উত্তরপ্রদেশে একাধিক গণধর্ষণ ও খুনের প্রতিবাদ, মানিকতলায় পুড়ল যোগীর কুশপুতুল

জানাগেছে, সাগরদ্বীপের চকফুলডুবি গ্রামের বাসিন্দা ষাটোর্ধ বৃদ্ধা সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। তাঁর মীন ধরার জালে আচমকা ধরা দেয় এই ৫২ কেজি ওজনের ভোলা ভেটকি। এই মীন ধরার জালে এত বড়মাপের মাছ দেখে নিজেই হতবাক হয়ে পড়েন। খবর ছড়িয়ে পড়ে আশাপাশের গ্রামগুলিতেও। হইচই পড়ে যায় চলফলডুবি গ্রামে। স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি, মাছ কেনার জন্য ভিড় জমান আশেপাশের ব্যবসায়ীরাও। 

আরও পড়ুন-১৫ অক্টোবর নয়, ১ নভেম্বর থেকে অসমে খুলছে স্কুল-কলেজ

৫২ কেজি ওজনের ভোলা ভেটকি দেখে প্রত্য়েকেই কেনার জন্য ইচ্ছেপ্রকাশ করতে থাকেন। তরতর করে দাম চড়তে থাকে ভোলা ভেটকির। শেষমেষ ৬ হাজার ২০০ কেজি দরে দাম ঠিক। সেই ৫২ কেজি ওজনের ভোলা বিক্রি হয় ৩ লক্ষ টাকায়। রাতারাতি লাখপতি হয়ে যান ওই বৃদ্ধা। 

আরও পড়ুন-ক্রেডিটকার্ড-আয়কর-ড্রাইভিং লাইসেন্স, ১ অক্টোবর থেকে ১০টি ক্ষেত্রে নিয়ম বদল

জানাগেছে, গুরুতর জখম অবস্থায় মীন ধরার জালে ওঠে মাছটি। কোনও জাহাজ ও নৌকায় ধাক্কা লেগে মাথায় আঘাত পায় সে। সেকারণে জখম অবস্থায় ভাসতে ভাসতে পাড়ের দিকে চলে আসে। যাই হোক ৫২ কেজির মাছ ধরে ভোলবদল হল হতদরিদ্র বৃদ্ধার।