অঙ্কুশ হাজরার সেন্স অফ হিউমার যে যত প্রশংসা করা যায় ততই কম। তাঁর ভিন্ন ধরমের আইডিয়াতে সকলকে হাসানোর সহজ উপায় খুঁজে বের করেন তিনি। তা অবশ্য আর পাঁচজন অভিনেতা-অভিনেত্রীর পক্ষে করা কতটা সম্ভব তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রামে সাত বছরের পুরনো একটি ছবি পোস্ট করেছেন। যেখানে উনি লেখেছন, "প্রায় সাত বছরের পুরনো ছবি। যতদূর মনে পড়ছে ঐন্দ্রিলার কাছে একটা বেট-এ হেরে গিয়েছিলাম। আর তাতেই এই হাল হয়েছিল আমার।" ছবি দেখে সকলে প্রায় বেশ কিছুক্ষণ হেসে গিয়েছেন। এর আগেও তিনি বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের জন্মদিন মজার ভিডিও পোস্ট করে সকলের সমনোরঞ্জন করেছিলেন।

আরও পড়ুনঃমনোক্রমে নুসরত, হটনেসের সীমা ছাড়ালেন টলি-নায়িকা

অঙ্কুশ এবং বিক্রম, দু'জনের বন্ধুত্ব কতটা গভীর তা  তাঁদের প্রত্যেক সাক্ষাৎকারেই প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। ঐন্দ্রিলা অঙ্কুশের প্রেমিকা এবং বিক্রমের প্রিয় বান্ধবী, তবুও অঙ্কুশ এবং বিক্রমের ব্রোম্যান্সে কুপোকাত নেটদুনিয়া। লকডাউনে দেখা সাক্ষাৎ ছিল না। বিক্রম ছিলেন মুম্বইতে, অঙ্কুশ কলকাতায়। তবুও বন্ধুর জন্মদিন কীভাবে স্পেশ্যাল বানাতে হয়, তা বোধহয় অঙ্কুশের চেয়ে ভাল কেউই জানেন না। লকডাউনে জন্মদিন পড়লে বন্ধু-বান্ধরা সাধারণত ভিডিও কল করে ভারচ্যুয়ালি শুভেচ্ছা জানাচ্ছে, তবে অঙ্কুশ সেসব ক্লিশেড জন্মদিনের শুভেচ্ছার আইডিয়ায় একেবারেই নেই। বাড়ির পোশাকে নিজের ঘরে প্রায় লাফাতে লাফাতে শুরু করে ভিডিও বানিয়েছিলেন। তাতে তাঁকে বলতে দেখা যায়, "ভাই আজকে তোর জন্মদিন। ভাবতে পারছিস আজ একসঙ্গে থাকলে আমরা কী কী করতাম।" 

আরও পড়ুনঃদুবাইয়ের মরুভূমিতে শ্রাবন্তীর সঙ্গে ঐন্দ্রিলা, ফিরে যেতে থ্রোব্যাকের দিনগুলিতে

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

Almost 7 years old pic.. dont remeber much but i think there was a bet i lost from @love_oindrila .. this was d consequence 😏

A post shared by Ankush (@ankush.official) on Jul 14, 2020 at 5:05am PDT

 

তারপরই একেবারে শান্ত অঙ্কুশ। বলে ওঠেন, "কিছুই করতাম না। তুই তোর বাড়ি, আমি আমার বাড়ি। তুই আমায় কখনও কিছু দিসনি জন্মদিনে, না গিফ্ট, না সারপ্রাইজ। তাই আমারও মন থেকে কিছুই আসছে না। তাই আশীর্বাদ করি, সুখে থাক, ভাল থাক।" অঙ্কুশ-বিক্রমের ক্যাজুয়াল ব্রোম্যান্সে নেটদুনিয়া খুঁজে পেয়েছিল হাস্যরস। বন্ধুদের জন্মদিনে এভাবে ট্রোল করে উইশ করাটাও ট্রেন্ডের মধ্যেই পড়ে। মজার ভিডিও বানাতে হলে অঙ্কুশের চেয়ে ভাল আর কে আছে। এই ভিডিওর আইডিয়া তারই। প্রথমে এক্সাইটমেন্ট থেকে হঠাৎ ক্যাজুয়াল হয়ে যাওয়া অঙ্কুশের চেয়ে ভাল আর কে পারে। অভিনেতার কমিক টাইমিংও অসাধারণ। এই ভিডিওর জবাবে এখন বিক্রম কী বলেন সেটাই দেখার বিষয়। কারণ মাঝে মধ্যে বন্ধুকে ট্রোলিংয়ের বিষয় নাম লেখান বিক্রমও। এমন অনেক পোস্টও করেছেন আগে।