অঙ্কুশ হাজরা কালীপুজোয় প্রকাশ করেছিলেন তাঁর আগামী ছবি ম্যাজিক-এর প্রথম পোস্টার। যেখানে সাদা পোশাকে দেখা যাচ্ছে অঙ্কুশকে। মেকআপ রুমের মত একটি আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন তিনি। চোখে মুখে এক অদম্য জেদের ছোঁয়া। চোখের চাউনিতে ভয় নেই এক ফোটাও। উত্তর কিছুটা হয়তো পাওয়া যেত বড়দিনে। অর্থাৎ ২০২০ র ক্রিসমাসে। ম্যাজিক ছবির ট্রেলার মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এই দিন। তবে দুর্ভাগ্যবসত তা পিছিয়ে যায়।  

নতুন বছরে মুক্তি পেল 'ম্যাজিক' ছবির ট্রেলার। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এ যেন দুটো ভিন্ন জগৎ। যা এক নামকরা ম্যাজিশিয়ান ইন্দ্রজিৎকে দিয়ে শুরু তা বদলে গেল মানসিক ভারসাম্যহীন ইন্দ্রজিতের রহস্যে। ছেলেবেলার স্মৃতিগুলো একেবারে তিক্ততায় ভরা। যার কারণেই কি এমন ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন হল ইন্দ্রজিতের। তবে মানসিক ভারসাম্যহীনতা কি আদৌ সত্যি নাকি এই চরিত্রের পিছনে লুকিয়ে রয়েছে অন্য কোনও দুর্ঘটনা।

আরও পড়ুনঃঅন্য পুরুষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতায় মজে রিয়া, তবে কি সুশান্তকে ভুলেই গেলেন বঙ্গতনয়া

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Ankush (@ankush.official)

 

রহস্যের গন্ধে ম ম করছে 'ম্যাজিক' ছবির ট্রেলার। কোথাও কোনও ভাবেই উত্তর খোঁজা যাবে না। কেবল এইটুকুই মাথায় রাখতে হবে ইন্দ্রজিৎ নিজেকে একজন আয়না বলে দাবি করে, যে মানুষকে তার মুখ দেখায়। যার সারমর্ম হতে পারে, মানুষকে তার আসল পরিচয় দেখাতে সাহায্য করে ইন্দ্রজিৎ। এই কাজে তাকে অনেকটাই বেশি সঙ্গ দেয় কৃতী। তাহলে এই কৃতীকেই বা ছাদ থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিল কেন সে। এমনই এক ঝলক ভেসে উঠএছে ট্রেলারে। যা দেখে গায়ে কাঁটা দিয়ে উঠবে দর্শকের। 

কৃতীকে ছাড়া ইন্দ্রজিতের কোনও অস্তিত্ব নেই। এ কথা নিজেই বলে ইন্দ্রজিৎ। কৃতীর চরিত্রের রহস্যে যখন দর্শক ডুব দিতে যাবে তখনও আরও এক চরিত্র উঠে আসে। এক ম্যানিকিন। যাকে বাঙালি বধূর রূপে সাজানো হয়েছে। সর্বক্ষণ ইন্দ্রজিতের সঙ্গে থাকে সেই ম্যানিকিন। এর পিছনেও লুকিয়ে অন্য গল্প। চারিদিকে টুকরো টুকরো রহস্য নিয়েই তৈরি 'ম্যাজিক'র প্লটলাইন। তবে ট্রেলারে কোনও স্পয়লার না দিয়েও সকলের উত্তেজনা টানটান রাখা, এবং রহস্যের প্রতি দর্শকমহলকে আকর্ষণ করতে সক্ষম অঙ্কুশ এবং ঐন্দ্রিলা। রাজা চন্দের পরিচালনায় দেখা গিয়েছে পায়েল সরকার, দেবশঙ্কর হালদার, বিদিপ্তা, পিয়ান সরকার সহ অনেকে।