করোনা আবহে পিছিয়ে গিয়েছিল কলকাতা আন্তর্জিতাক চলচ্চিত্র উৎসব। মাস দুয়েক পিছিয়ে যেতেই সরকারের উদ্যোগে অবশেষে আজ, ৮ জানুয়ারি উদ্বোধন হল এই উৎসবের। আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। ২৬ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে উপস্থিত ছিল একঝাঁক তারকা। নবান্নের সভাঘরেই আয়োজিত হয়েছিল এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। 

আরও পড়ুনঃজুনের সন্তানের হত্যা, গ্রেফতার করা হল শ্রীময়ীকে, রোহিত কি পারবে নিজের প্রেমকে বিপদমুক্ত করতে

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে লাইভ ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে। উত্তরীয় এবং পুরষ্কার দিয়ে সম্মান জানাল হয়েছে একের পর এক পরিচালক, প্রযোজক, অভিনেতা, অভিনেত্রীদের। অতিথিদের আসনে ছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, রাজ চক্রবর্তী, গৌতম ঘোষ, দেব, রঞ্জিত মল্লিক, কৌশানি মুখোপাধ্যায়, পাওলি দাম, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার, বনি সেনগুপ্ত, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, ইন্দ্রাণী হালদার, কৌশিক সেন, ঋতাভরী চক্রবর্তী, সৌরাসেনী মৈত্র, রুক্মিনী মৈত্র, সোহম চট্টোপাধ্যায়, তনুশ্রী সরকার, অরিন্দম শীল, অনুভব সিনহা সহ অনেকে। 

 

 

অন্যান্য বছর, অমিতাভ বচ্চন, জয়া বচ্চন, শর্মিলা ঠাকুর, ঐশ্বর্য রাই বচ্চন, অভিষেক বচ্চন, কাজল, কমল হাসান, মহেশ ভাট সহ অনেক বলিউড তারকারাই উপস্থিত থাকেন। কোভিড পরিস্থিতির জেরে তাঁরা এবারে আর উপস্থিত থাকতে পারেননি।  উৎসবের সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং জুন মালিয়া। ভারচ্যুয়ালি হাজির হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বসাডর শাহরুখ খানও। তবে সকলের উপস্থিতির মাঝে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে মিমি চক্রবর্তীর  অনুপস্থিতি। এবং নুসরত জাহানও শেষমুহূর্তে এসে উপস্থিত হয়েছিল অনুষ্ঠানে।

 

 

অনুষ্ঠানের প্রথমদিকেই দুই সাংসদ-অভিনেত্রীর মধ্যেই একজনও হাজির ছিল না কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। মিমি এখন রয়েছেন দুবাই-তে। অন্যদিকে রাজস্থানে ছিলেন নুসরত। এই কারণেই মিমি উপস্থিত থাকতে পারেননি। এবং নুসরত শেষমূহুরতে আসেন। বিষয়টি ভক্তদের তেমন চোখ না লাগলেও, কটাক্ষ শুরু করেছে নিন্দুকেরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় নুসরত এবং মিমিকে নিয়েই চলছে নানা সমালোচনা। শহরের সবচেয়ে বড় চলচ্চিত্র উৎসবে কেন উপস্থিত নেই মিমি। কেন দেরিতে আসবেন নুসরত। অভিনেত্রী এবং সাংসদ হিসেবে তাঁদের উপস্থিতি এবং সঠিক সময় বিরাজমান থাকা ছিল কাম্য। এই দাবি ও অভিযোগের মাঝেই অভিনেত্রীদের ভক্তরা ছুটে এসেছে। তাঁদেরও যে ব্যক্তিগত জীবন আছে, সেটা সকলের বোঝা উচিত, জানাল ভক্তরা। 

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Mimi (@mimichakraborty)

 

অনুষ্ঠানের প্রথমদিকেই দুই সাংসদ-অভিনেত্রীর মধ্যেই একজনও হাজির ছিল না কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। মিমি এখন রয়েছেন দুবাই-তে। অন্যদিকে রাজস্থানে ছিলেন নুসরত। এই কারণেই মিমি উপস্থিত থাকতে পারেননি। এবং নুসরত শেষমূহুরতে আসেন। বিষয়টি ভক্তদের তেমন চোখ না লাগলেও, কটাক্ষ শুরু করেছে নিন্দুকেরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় নুসরত এবং মিমিকে নিয়েই চলছে নানা সমালোচনা। শহরের সবচেয়ে বড় চলচ্চিত্র উৎসবে কেন উপস্থিত নেই মিমি। কেন দেরিতে আসবেন নুসরত। অভিনেত্রী এবং সাংসদ হিসেবে তাঁদের উপস্থিতি এবং সঠিক সময় বিরাজমান থাকা ছিল কাম্য। এই দাবি ও অভিযোগের মাঝেই অভিনেত্রীদের ভক্তরা ছুটে এসেছে। তাঁদেরও যে ব্যক্তিগত জীবন আছে, সেটা সকলের বোঝা উচিত, জানাল ভক্তরা। 

;