মনামি ঘোষ নিজের মিনি সিরিজ 'ফুচকা'র শেষ পর্ব নিয়ে হাজির নিজের ইউটিউব চ্যানেলে। রিমি, প্রিয়া, নয়ন, পূজা। একাই চার চারটি চরিত্রে অভিনয় করে বাড়িতেই শর্ট ফিল্ম বানিয়ে ফেলেছেন মনামি। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে পোস্ট করেছেন 'ফুচকা' নামক এই শর্ট ফিল্মটি। রিমি বেশ মডার্ন, সাজগোজ নিয়ে থাকতে ভালবাসে। প্রিয়া ঘরোয়া সাধারণ একটে মেয়ে। নয়ন আবার ভীষণ পড়াশুনো নিয়ে থাকতে ভালবাসে। এবং রিমির কাছে কাজের চেয়ে প্রিয় আর কেউ নেই। চার বন্ধু মিলে লকডাউনে বসে শুরু করেছিল অন্তক্ষরি। হিন্দি-বাংলা মিশিয়ে বেশ ভালই চলছিল খেলাটা। 

আরও পড়ুনঃসুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে গভীরভাবে জড়িয়ে এই ব্যক্তি, সিবিআই-র গেস্টহাউজে চলল জিজ্ঞাসাবাদ

হঠাৎই রিমির একটি ফোন আসে। সঙ্গে সঙ্গে সকলের মুখে কেমন যেন একটা ভয়, দুঃখের চাপ। রিমি হলল বাবা তাকে ফোন করছেন। তাহলে বাবার ফোনে এমন চেহারার হাল কেন। লকডাউন শুরু শহরে, সবাই নয়নের বাড়ি থেকে বেরিয়ে নিজেদের বাড়ি ফিরে যায়। হঠাৎই নয়নের বাড়িচতে লোডশেডিং। রিমি বাড়ি ফিরতেই তাঁকে তাঁর বাবা বারণ করে দেয় নয়নে বাড়ি যেতে বারণ করে দেয়। কেন বারণ করে সেই কারণ এখনও রহস্যতেই ডুবে। রিমি চলে যাচ্ছে বেঙ্গালুরু। পূজার নিজের বাড়ি কৃষ্ণনগর ফেরা হল না। অন্যদিকে সাংঘাতিক বিপদে পড়েছে নয়ন। কী বিপদ কেউ জানেন না। 

আরও পড়ুনঃ'নেপোটিজম রকস', জনসমক্ষে চিৎকার করে উঠলেন করণ জোহার, ভাইরাল ভিডিও

 

 

বারে বারে সকলকে ফোন করেও কারও কাছে সেই ফোন আর পৌঁছয়নি। পরদিন সকাল থেকে নয়নকে সকলে ফোন করেও আর পাচ্ছে না। এদিকে শেষ দৃশ্যে দেখা গেল হাতে কেউ একটা নয়নের ফন নিয়ে বসে আছে তবে ইচ্ছাকৃত ফোনটা তুলছে না। সেখানেই পর্দায় ভেসে উঠল টু বি কন্টিনিউড। এবার শেষ পর্বে ফুটে উঠল নয়নের ক্ষোভ। বান্ধবীদের ফোন করে না পাওয়ার পর বিপদে পড়ে রীতিমত ক্ষোভ উগরে দিয়েছে নয়ন। তবে তার মন ভাল করতেও বেশি সময় লাগেনি। শেষে নিজের নিজের বাড়িতে বসেই ফুচকা বানিয়ে খাওয়ার প্ল্যান হল সকলের। এভাবেই শেষ হল ফুচকার যাত্রা। এবার ভক্তরা নতুন কিছু পাওয়ার আশায় অনুরোধ করে চলেছে মনামিকে। 

আরও পড়ুনঃসুহানাকে 'ইম্যাজিনারি' কিস বয়ফ্রেন্ডের, জিভ টেনে ছিঁড়ে দেওয়ার হুমকি শাহরুখ খানের