কবে মিলবে বিচার, এই অপেক্ষাতেই এখন দিন গুণছেন তাপস পালের স্ত্রী নন্দিনী পাল ও তাঁর মেয়ে সোহিনী। দীর্ঘদিন অসুস্থতার পর মাঝে বেশ খানিকটা সুস্থ হয়ে উঠে ছিলেন তাপস পাল। কথা ছিল মেয়ের কাছে যাবেন। কিন্তু তা আর হল না। মুম্বাই বিমান বন্দরেই অসুস্থ হয়ে পড়লেন তিনি। সেখান থেকে হাসপাতাল। বেশ কয়েকদিন ধরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্চা লড়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছিলেন তাপস পাল। অসুস্থা থাকা অবস্থায় কোনও খবরই উঠে আসেনি প্রকাশ্যে। 

আরও পড়ুন-ধর্ম নিয়ে মত রেখে নজর কাড়লেন অক্কি, শাহরুখের পর এবার শিরোনামে অক্ষয়...

হঠাৎই সামনে আসে প্রয়াত অভিনেতা তাপস পাল। এই খবরে ভক্ত মহল থেকে শুরু করে সিনে দুনিয়া, ভেঙে পড়েছিল মুহূর্তে। নেমে এসেছিল শোকের ছায়া। তবে তাঁর শেষকৃত্য হওয়ার পরই বিষ্ফোরক মন্তব্য করে বসেন নন্দিনী। জানান, হাসপাতাল পক্ষের গা ফিলতির জন্যই মারা চলে যেতে হয়েছে অভিনেতাকে। জানিয়েছিলেন, আমার স্বামীকে মেরে ফেলা হয়েছে। তবে থেকেই ভেঙে পড়েছেন নন্দিনী। 

আরও পড়ুন-প্রকাশ্যে এল রজনীকান্তের বন্য সাফারির ঝলক, দেখে নিন কেমন ছিল অ্যাডভেঞ্চার সফর...

আরও পড়ুন-ফাঁস হল বলিউডের 'গোল্ডেন ম্যান'-এর আসল রহস্য, জানলে চমকে যাবেন আপনিও...

এখনও হারাননি তাপস পাল, প্রতিটা মুহূর্তে তিনি রয়েছেন নন্দিনীর সঙ্গে। মৃত্যুর পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক ছবি শেয়ার করে স্মৃতি চারণা করে চলেছেন তিনি। বিয়ে থেকে শুরু করে দোল, নিজেদের নানা মুহূর্তে তুলে ধরছেন তিনি। তাপস পালের বেশ কিছু ছবিও শেয়ার করেছেন তিনি। যা দেখে আবেগে ভাসল ভক্তকূল। ১৮ ফেব্রুয়ারি প্রয়াত হন তাপস পাল। তবে থেকেই বিচারের আশায় দিন গুণছেন তাঁর পরিবার।