কলকাতা ছেড়ে লন্ডন ছুঁটলেন নুসরত জাহান। ফ্লাইটে বসে ছবি পোস্ট করলেন তিনি। শহর ছেড়ে কোথায় এবং কেন গেলেন অভিনেত্রী। তাঁর ছবিতে ইউনাইটেড কিংডমের পতাকা দেখা যাচ্ছে। তাতেই ভক্তদের অনুমান লন্ডনে গিয়েছেন তিনি। হয় কোনও ফিল্মের শ্যুটিং অথবা ঘুরতে। সমস্ত নিয়মাবলী মেনেই বিদেশে রয়েছেন নুসরত। পুজোর আর এক মাস। তার আগেই শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর সমস্ত প্রস্তুতি। জোর কদমে চলছে অভিনেত্রী নুসরত জাহানের প্রস্তুতিও। শাড়ি হোক বা সালোওয়ার সবেতেই সাবলিল তিনি। এবার এথনিকেই সেজে উঠবেন তিনি। নুসরতের গ্ল্যামার নিয়ে অবশ্যই কোনও সন্দেহ নেই। 

আরও পড়ুনঃজয়া এহসানকে 'আন্টি' বলে সম্বোধন, রে রে করে উঠল বাংলাদেশের ভক্তরা

তাই পোশাক তিনি যাই পরুক না কেন, সৌন্দর্যে হার মানান একাধিক অভিনেত্রীদের। এবারও তার অন্যথা হল না। ফ্লোরাল সালোওয়ারে সেজে উঠেছিলেন নুসরত। তাতেই কুপোকাত ভক্তরা। ইতিমধ্যেই পুজোর আগে নুসরতের বাড়িতে এসেছিল অথিতি। এই অথিতিদের তালিকা অত্যন্ত স্পেশ্যাল নুসরতের কাছে। অনেকে এদের 'বেবিজ' বলেও অ্যাখা দিয়ে থাকেন। নুসরতও সম্ভবত নিজের সন্তানের মতই দেখেন এই অথিতিকে। এই অথিতির ছবি ভিডিও নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছিলেন নুসরত। রানি রঙের বুগনভেলিয়ার ফুলই হল সেই অথিতি। পুজোর আগেই একাবের টাটকা বুগনভেলিয়া নুসরতের বাগানে। এক টুকরো রোদও এসে পড়েছে তাঁর ঘরে। 

আরও পড়ুনঃমধুমিতার জীবন ও শরীর জুড়ে প্রেমের আনাগোনা, নিজেই ফাঁস করলেন অভিনেত্রী

 

মিঠে রোদের আমেজ নিচ্ছেন নুসরত। যেকোনও ত্বকচর্চার চেয়ে সানবাথ যথেষ্ট ভাল। তবে অবশ্যই সানস্ক্রিনের ব্যবহার করে। ফুল, রোদের আলো ছাড়াও রয়েছে পাতাবাহারি গাছ। এই পাতাবাহারি গাছগুলি ছেয়ে গিয়েছে নুসরতের বাগান। যা অভিনেত্রীর মন তো ভাল করেই শান্তিও আনে। বুগনভেলিয়া ছাডা়ও বাকি জিনিসগুলিও হল নুসরতের অথিতি। এদেরকেই এখন প্যাম্পার করছেন নুসরত ও নিখিল। প্রসঙ্গত, ক্রপ টপ এবং পালাৎজো পরে ফোটোশ্যুটের জন্য পোজ দিয়েছিলেন তিনি। তবে তাঁর এই লুকের ইউএসপি হল ট্যাটু এবং হেয়ারস্টাইল। বব কাট কার্লি চুল এবং পেটে ও বুকে ট্যাটু নজর কেড়েছে সকলের। 'এসওএস কলকাতা' ছবিতে এমন লুকেই দেখা যাবে নুসরত জাহানকে।