করোনা আবহে এইমুহূর্তে বলিউডের বিগ বাজেট সিনেমাগুলি প্রেক্ষাগৃহগুলি বাইপাস করে দিয়ে সরাসরি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্য়ে রয়েছে 'গুলো সীতাবো', 'শকুন্তলা দেবী' এবং 'লক্ষ্মী বম্ব'। এখন, এই সিদ্ধান্তটি রীতিমত বাণিজ্যিক শিল্পে ঝড় তুলেছে। 

আরও পড়ুন, '১৩ জুনই মনে হয়েছিল কিছু ঘটছে, আশঙ্কাই হল সত্যি', সুশান্তের ফ্ল্যাটে এমন কী দেখেন প্রতিবেশীর


কারণ যেখানে বাইরে বেরোনোই সাধারণ মানুষের কাছে ঝুঁকি হয়ে দাড়িয়েছে। সেখানে এই পরিবহণের বাধা পেরিয়ে জমায়েতের কোনও প্রশ্নই ওঠে না। তাই কোভিড বিধি মেনে ঘরে থেকে ডিজিট্য়াল প্ল্য়াটফর্ম বা  ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ফিল্মে ডুবতেই মানুষ এখন অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। তা বলে পেক্ষাগৃহের স্বাদ নিতে ভূলে গেছে দর্শকরা এমনটা কখনই নয়। বরং সময়ের অপেক্ষা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই স্বমহিমায় ফিরবে সিনেমা হল। এই বিষয়ে সিঙ্গাপুর থেকে মন খুলেছেন স্বয়ং ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।

আরও দেখুন, সলমন থেকে হেলেন, গণেশ বন্দনায় মাতল গোটা খান পরিবার, আরতির ভিডিও ভাইরাল


ঋতুপর্ণা জানিয়েছেন, 'আমি দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করি আমরা শক্তিশালী ভাবেই এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসব। থিয়েটারগুলি কখনই তাদের মনোভাব হারাবে না। এগুলি হ'ল শিল্পের মেরুদণ্ড। তবে, এটি এমন পরিস্থিতি যা নির্দিষ্ট প্রযোজক, চলচ্চিত্র নির্মাতাদের তাঁদের চলচ্চিত্রগুলি অনলাইনে মুক্তি দিতে বাধ্য করেছে। তবে আপনি জানেন যে সময়ের সঙ্গে পরিবর্তন আসে। প্রায় ২০ বছর আগে, তখন ট্রেলারগুলি অনলাইনে প্রকাশ হয়নি। কিন্তু আজ, আমাদের কাছে সেটা আছে। এই ওটিটি প্রকাশটি বর্তমান পরিস্থিতির কারণে আমাদের কাছে নতুন। '

আরও দেখুন, অনিল কাপুরের বিলাস বহুল বাংলো, ভক্তরা ছবির খোঁজে সব থেকে বেশি সার্চ করে থাকেন গুগুলে

'তবে এই ওটিটি  প্ল্যাটফর্ম, কোনও প্রেক্ষাগৃহে বসে চলচ্চিত্র দেখার অভিজ্ঞতা কখনই বদলে দেবে না। এটি পুরোপুরি একটি আলাদা অভিজ্ঞতা। তবে আমরা নতুন মাধ্যমগুলি এড়াতে পারি না। এই সঙ্কটে আমরা কোনও সিনেমা হলে কোনও ছবি মুক্তি দিতে পারি না। সুতরাং, আমাদের বিকল্প হিসাবে ওটিটি রাখতে হবে।  পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ার পরে থিয়েটারগুলি হাউসফুল শো নিয়ে ফিরে আসবে। একজন অভিনেত্রী ও শিল্পী হিসাবে আমাকে বলতে হবে এটি এমন সিনেমা, যা আমাকে এখনকার তারকা করেছে। সুতরাং, বিশ্বাস রাখুন', আরও জানিয়েছেন ঋতুপর্ণা।