সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বায়োপিক নিয়ে পরমব্রতর কাজ করার ইচ্ছে ছিল অনেকদিনের। টলিউডের প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা তথা পরিচালক পরম সেই প্রস্তাব নিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের কাছে। শুরু হয়েছিল ছবির কাজ। ধাপে ধাপে এগুতে থাকে তথ্যচিত্রের স্ক্রিপ্ট। তথ্যচিত্রই বটে, অভিনেতার জীবনে প্রত্যেকটা অধ্যায়কে ধাপে ধাপে বেঁধে ফেলা। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় শেষ বয়স পর্যন্ত ছিলেন টলিউডের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেতা। একের পর এক ছবির কাজ নিয়ে দিন কাটছিল তার। যার ফলে বেশ কিছুটা সময় ধরে চলতে থাকে এই ছবির কাজ। এরপরই লকডাউন, যার ফলে ছিটিয়ে পড়ে ছবি নির্মাণ।

আরও পড়ুন- ঘুরতে গিয়ে হঠাৎ এমন কি সিদ্ধান্ত নিলেন অঙ্কুশ, ভক্তদের মনে বেশ খানিকটা আঘাত

তবে ছবির শুটিংয়ের কাজ প্রায় অনেকটাই হয়ে গিয়েছিল, একের পর এক ছবি তখন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় পাইপলাইনে। করোনায় একে একে সকলেই গৃহবন্দী, নিয়ম মেনে ঘরে বন্দি হলেন কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এরপর আর সেটে ফেরা হয়নি। করোনকে হারালেও জীবন যুদ্ধে তিনি ইতি টেনেছেন, সকলকে কাঁদিয়ে টলিউডের মাথার উপর থেকে ছাদ হঠাৎই একদিন ধ্বসে পরে। কাজ করতেই তাঁর আসা, আর সেই কাজ করতে করতেই মানুষের মধ্যে থেকে কখন যে তিনি সরে গেলেন তা বুঝতেও দিলেন না। 

 

 

আর শেষ সময়ে এসে পরমের ফিল্মে জীবনের প্রতিটি অধ্যায় নিয়ে খোলামেলা কথা বলে গেলেন কিংবদন্তি তারকা। সেই ছবি অভিযানে ট্রেইলার নিয়ে এবার হাজির পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। রাজনীতির ময়দান থেকে থিয়েটার, সিনেমা থেকে কবিতা, নির্বিশেষে এক স্পষ্ট বক্তারূপে ধরা দিলেন শেষ অধ্যায়ে। ছবি যা সুক্ষ্মতার সঙ্গে তুলে ধরেছেন যিশু সেনগুপ্ত। পাশাপাশি একঝাঁক তারকাদের উপস্থিতি, প্রসেজনিৎ চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে রূদ্রনীল, তালিকাতে রয়েছে আরও অনেকে।