প্রযুক্তির কারসাজি, আসানসোল পুরসভার বিকৃত ছবি ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নেপথ্যে কারা? অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। টুইট করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের তরফে এ খবর জানানো হয়েছে। এমনকী,  এই ছবিটি ফরওয়ার্ড করে বিতর্ক বাড়িয়েছেন, এমন লোকেদেরও গ্রেফতার করা হচ্ছে। এই ধরণের বিভ্রান্তিকর বা ভুয়ো ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার না করার আবেদন জানিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ISI-র নির্দেশেই অপরাধে সামিল বাংলার তানিয়া, ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্টে সেনাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব

পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোল শহরটি একেবারেই ঝাড়খণ্ড লাগোয়া। শহরে আবাঙালি বা হিন্দিভাষী মানুষের সংখ্যাও নেহাতই কম নয়। কিন্তু তা বলে পুরনিগমের সাইনবোর্ডে স্থান পাবে না বাংলা ভাষা! সোশ্য়াল মিডিয়ায় ছবি ভাইরাল হতেই জমে ওঠে বিতর্ক। ছবিতে স্পষ্ট দেখা দিয়েছে, পুরনিগমের সাইন বোর্ডে সবার ওপরে রয়েছে ইংরেজি, মাঝে উর্দু এবং সবশেষে হিন্দি! এই ইস্যুতে হাতিয়ার করে সুর চড়িয়েছে বিজেপি। ছবিটি নিজের ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করেছেন দলের রাজ্য শাখার মুখপাত্র তরুণজ্যোতি তিওয়ারি। বাপ্পা চট্টোপাধ্যায় নামে বিজেপিরই এক কর্মী আবার ছবিটি পোস্ট করেছেন 'বাংলাপক্ষ'-র ফেসবুকে পেজে। প্রচার শুরু হয়, এ রাজ্যে উপেক্ষিত বাংলার ভাষা!

আরও পড়ুন: দুই দুষ্কৃতী দলের মধ্য়ে সংঘর্ষে আগুন-বোমাবাজি, উত্তপ্ত হয়ে উঠল নদিয়ার শান্তিপুর

তারপর? পুরনিগমের মূল ভবনে লাগানো সাইনবোর্ডের সম্পূর্ণ ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন আসানসোল শহরের বাসিন্দারাই।  দেখা যায়, সাইন বোর্ডে বড় বড় হরফে জ্বলজ্বল করছে বাংলায় 'আসানসোল পুরনিগম' লেখাটি। আর তার ঠিক নিচে রয়েছে ইংরেজি, উর্দু ও হিন্দি ভাষার বোর্ডটি। এরপর আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি অভিযোগে ভিত্তিত তদন্তে নামে পুলিশ। অবশেষে ধরা পড়ল অভিযুক্ত।