পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান-করোনা আবহে অমাবিকতার চূড়ান্ত নজির দেখল পূর্ব বর্ধমান। ফুসফুস সমস্যার কারনে অসুস্থ বৃদ্ধ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে গুডব রটে যায় গোটা গ্রামে। এই অবস্থায় ব্লক হাসপাতাল ওই বৃদ্ধকে ভর্তি নেয়নি বলে অভিযোগ। কার্যত বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হল বৃদ্ধের। করোনা গুজবের জেরে তাঁর সৎকারে এগিয়ে এলেন না কোনও গ্রামবাসী। অবশেষে, তাঁর শেষযাত্রায় অংশ নিলেন গ্রামেরই মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। করোনা আবহে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির গড়ল পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বর।

আরও পড়ুন-অমানবিক স্কুল শিক্ষক, বাড়ির বারান্দায় বিশ্রামরত ভ্য়ান চালককে পিটিয়ে খুন

জানাগেছে, দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন কালনার মন্তেশ্বরের মামুদপুর গ্রামের বাসিন্দা সন্তোষ ঘোষাল। কগত কয়েক দিন ধরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতী হওয়ায় গ্রামে গুজব রটে যায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন সন্তোষবাবু। এই অবস্থায় করোনার ননুনা পরীক্ষার জন্য মন্তেশ্বর প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যান সন্তোষবাবুর স্ত্রী। করোনা সন্দেহে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। কার্যত বিনা চিকিৎসায় সন্তোষ ঘোষালের মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ। এরপরই দেহ হাসপাতাল মর্গে থাকাকালীন ওই বৃদ্ধের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। তারপরেও, দেহ সৎকারের জন্য গ্রামবাসীরা এগিয়ে আসেননি বলে অভিযোগ। 

আরও পড়ুন-করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির জের, এবার হাতুড়ে চিকিৎসকদের কাজে লাগাবে স্বাস্থ্য দফতর.

অবশেষে, পাশে দাঁড়াল মন্তেশ্বরের মামুদপুর গ্রামের কিছু মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। হিন্দু মতে সন্তোষবাবুর দেহ সৎকারের ব্যবস্থা করেন তাঁরাই। গ্রামবাসী ফয়িয়াদ মল্লিক জানান, এই দৃষ্টান্ত অন্যন্য নজির গড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি।