পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান-একটি ফেসবুক ঘিরে তোলপাড় বর্ধমান জুড়ে। 'রাম রাজত্বের অবসান'। তৃণমূল বিধায়ক ঘনিষ্ঠ নেতার এই ফেসবুক পোস্ট ঘিরেই বিতর্ক শুরু হয়েছে। মন্তব্য কাটোয়া শহর প্রাক্তন তৃণমূল সভাপতি অমর রামকে কটাক্ষ করে লেখা হয়েছে বলে দাবি। কেননা, কাটোয়ার তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাটোয়া শহর সভাপতি অমর রামের দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের বলে অভিযোগ।

জানাগেছে, অমর রাম তৃণমূলের কাটোয়া শহর সভাপতি ছিলেন। পাশাপাশি, তিনি কাটোয়া পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য। কাটোয়া তৃণমূল শহর সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় আমর রামকে। যেদিন পদ থেকে তাঁকে বহিষ্কার কার হয়, সেদিনই ফেসবুকে বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ এক নেতা 'রাম রাজত্বের অবসান' বলে ফেসবুকে মন্তব্য করেন। এর জেরে কাটোয়ায় ফের তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে এল।

আরও পড়ুন-'বিজেপি করার অপরাধ', তৃণমূলের 'মারে মাথা ফাটল' বুথ সভাপতির

তৃণমূল নেতা অমর রাম সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেন, ''বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ কর্মীরাই ফেসবুকে 'রাম রাজত্বের অবসান' বলে মন্তব্য করেছে। আমাকে ইঙ্গিত করেই অপমান করা হয়েছে। আমি যদি রাম হই, তাহলে রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় হলেন রাবন''।

আরও পড়ুন-কৃষি বিলের প্রতিবাদ, বর্ধমানে জাতীয় সড়ক অবরোধ কৃষক সভার

ফেসবুকে তাঁকে অপমান করা হয়েছে বলে দাবি তুলে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের দ্বারস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন তৃণমূল নেতা অমর রাম। যদিও, বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের দাবি, ''রাম রাজত্ব বলতে বিজেপির রাজত্বের কথা বলা হয়েছে। তবে বিষটনা আমি খতিয়ে দেখছি''।  একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই কাটোয়া তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে বলে মত রাজনৈতিকমহলের।

আরও পড়ুন-'টাকা ধার নিয়ে ফেরত দেয়নি অনুব্রত মণ্ডল', ফোনে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা