বিসলেরি চলে যাচ্ছে রতন টাটার আওতায়, ‘আমার সংস্থা আমার মতো করেই যত্ন পাবে’, আস্থা রমেশ চৌহানের

| Nov 24 2022, 10:29 PM IST

Bisleri
বিসলেরি চলে যাচ্ছে রতন টাটার আওতায়, ‘আমার সংস্থা আমার মতো করেই যত্ন পাবে’, আস্থা রমেশ চৌহানের
Share this Article
  • FB
  • TW
  • Linkdin
  • Email

সংক্ষিপ্ত

বর্তমানে বোতলবন্দি জলের মধ্যে বিসলেরি এবং কম্পানি হিসেবে টাটা-র ওপর যথেষ্ট ভরসা করেন ভারতীয়রা। ফলত, এই দুই সংস্থার মেলবন্ধনে ক্রেতা এবং ব্যবসায়ী, উভয়ই যে ভালো ফল পাবেন, তা আশাযোগ্য। 

যোগ্য উত্তরসূরির অভাবে আর ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যেতে পারছিলেন না ‘বিসলেরি ইন্টারন্যাশনাল’-এর চেয়ারম্যান রমেশ চৌহান, বর্তমানে তাঁর বয়স প্রায় আশি ছাড়িয়েছে। এর আগে তিনি নিজের ‘থাম্বস আপ’, ‘গোল্ড স্পট’ ও ‘লিমকা’র মতো সংস্থাগুলিকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন কোকো কোলার কাছে। এবার নিজের মালিকানাধীন ভারতের বৃহত্তম প্যাকেটজাত জলের সংস্থা বিসলেরি ইন্টারন্যাশনালকে তিনি হস্তান্তর করতে চলেছেন অভিজ্ঞ ব্যবসায়ী রতন টাটার সংস্থা ‘টাটা কনজ়িউমার প্রোডাক্টস্ লিমিটেড’-এর কাছে।

রমেশ চৌহান এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, “কেবলমাত্র টাকার জন্য নয়, আমি এমন একটা সংস্থাকে খুঁজছিলাম, যে আমার সংস্থার দেখভাল করবে একেবারে আমার মতো করেই৷ আমি অনেকটা আবেগের সঙ্গে এই ব্যবসাটাকে বড় করে তুলেছি। আমার কর্মীরাও সমান আবেগ আর উৎসাহ নিয়ে এত দিন কাজ করে এসেছেন।” টাটা গ্রুপের ওপর অপার আস্থা রেখে রমেশের বক্তব্য, “বিসলেরি সংস্থাটি বিক্রির সিদ্ধান্ত বড়ই কঠিন, তবে টাটা গ্রুপ এই সংস্থাটিকে আরও ভালো করে দেখভাল করতে পারবে।”

Subscribe to get breaking news alerts

সূত্রের খবর, টাটা কনজ়িউমার প্রোডাক্টস্ লিমিটেড প্রায় ৭০০০ কোটি টাকা দিয়ে কিনে নিতে চলেছে ‘বিসলেরি ইন্টারন্যাশনাল’-কে। একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০২১ অর্থবর্ষে বিসলেরি ব্রান্ডের বাজারমূল্য রয়েছে ২.৪৩ বিলিয়ন ডলার, ভারতীয় মূল্য়ে যা প্রায় ১৯ হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। তবে, আসন্ন ২০২৩ সালের মধ্যে এই মূল্য ১৩ শতাংশেরও বেশি বৃদ্ধি হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সেক্ষেত্রে একটি বছরে লাভ হতে পারে প্রায় ২২০ কোটি টাকা।

বিসলেরি সংস্থা শুধুমাত্র পানীয় জলই নয়, তরল পানীয় স্পাইসি, লিমোনাটা, ফনজো ও পিনাকোলাডাও বিক্রি করে। টাটা গ্রুপও জলের ব্যবসায় হিমালয়ান ব্র্যান্ডের আওতায় টাটা কপার প্লাস ওয়াটার এবং টাটা গ্লুকোর মতো প্য়াকেজাত জল আগে থেকেই বিক্রি করে। বর্তমানে বোতলবন্দি জলের মধ্যে বিসলেরি এবং কম্পানি হিসেবে টাটা-র ওপর যথেষ্ট ভরসা করেন ভারতীয়রা। ফলত, এই দুই সংস্থার মেলবন্ধনে ক্রেতা এবং ব্যবসায়ী, উভয়ই যে ভালো ফল পাবেন, তা আশাযোগ্য।


আরও পড়ুন-
বন্যা এবং আর্থিক সংকট, দুই দানবের চাপে পড়েও ভারতীয় বিমানঘাঁটি লাগোয়া বিমানবন্দর তৈরি অব্যাহতই রেখেছে পাকিস্তান
পাহাড়ের রাজনীতিতে দুর্বল হল হামরো পার্টি, দার্জিলিং পুরসভা চলে গেল গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চার হাতে
জোকা-তারাতলায় মেট্রো প্রস্তুতি চূড়ান্ত, ডিসেম্বরের কত তারিখে যাত্রীদের যাতায়াতের জন্য খোলা হবে পার্পেল লাইন?

null