ইতিমধ্যেই গোটা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে লকডাউনের আনলক পর্ব।  লকডাউনের জেরে সকলেই ঘরবন্দি। এই পরিস্থিতিতে কোথায়ও বিনিয়োগ করাও খুবই ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়। যেখানেই বিনিয়োগ করবেন সেখানেই কোনও না কোনও সমস্যা। এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে মিউচ্যুয়াল ফান্ডে। এখানে বিনিয়োগ করলেই আপনি হয়ে যেতে পারেন কোটিপতি। কোটিপতি হতে কে না চায়, কোটিপতি হওয়া সকলের কাছেই  একটি স্বপ্ন যা পূরণ হওয়া একলাফে সম্ভব নয় ৷ 

আরও পড়ুন-সুবর্ণ সুযোগ, অষ্টম শ্রেণি পাশেই মিলবে সরকারি চাকরি, আবেদনের শেষ তারিখ ৩১ আগস্ট...


কোটিপতি হওয়ার জন্য অনেকেই অনেক জায়গায় ইনভেস্ট করে থাকেন। কিন্তু শেষমেষ সেখান থেকে কোনও লাভের লাভ হয় না। কিন্তু সামান্য টাকা ইনভেস্ট করলেই যদি আপনি কোটিপতি হয়ে যায়, তাহলে সেই সুযোগ কে হাতছাড়া করতে চায়। এবার প্রতিদিন মাত্র ১৬৭ টাকা বিনিয়োগ করলেই আপনি হয়ে যাবেন কোটিপতি। কিন্তু কীভাবে সম্ভব, জানলে অবাক হবেন।

আরও পড়ুন-শিশুদের ফিটনেস ও খেলাধূলোর ভবিষ্যতের খোঁজ, অভিনব উদ্যোগ অ্যাপ ইউগো-র...

মিউচ্যুয়াল ফান্ডের এসআইপি-র মাধ্যমে আপনি কোটিপতি হতে পারবেন । এবং আপনার বহুদিনের স্বপ্নকেও বাস্তবায়িত করতে পারবেন।  এসআইপি-তে অনেক লং টার্মের ইনভেস্ট করার সুবিধা রয়েছে। এর মূল কারণই হল এর মাধ্যমে কম্পাউন্ডিংয়ের সুবিধা পাবেন আপনি। দীর্ঘ সময়ের জন্য ১৫ থেকে ২০ বছরের জন্য ইনভেস্ট করলে শেষের দিকে  কম্পাউন্ডিংয়ের অ্যামাউন্ট বেড়ে মোটা অঙ্কের রিটার্ন পাওয়া যায় ৷ তবে এসআইপি-তে ইনভেস্ট করলে যে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ইনভেস্ট করে যেতেই হবে এটা কিন্তু কখনওই বাধ্যতামূলক নয়  ৷ আপনি আপনার সময়মতো ইনভেস্টমেন্ট বন্ধ করে দিতে পারবেন ৷

আরও পড়ুন-দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে না কমছে, কী বলছেন চিকিৎসকরা...


প্রতিদিন  যদি ১৬৭ টাকা সেভিংস করা যায়, তাহলে এক  মাসে ৫০০০ টাকা হয় ৷ প্রতি মাসে এসআইপি-তে ৫০০০ টাকা ইনভেস্ট করলে আপনার পোর্টফোলিও বছরে ১২ শতাংশ রিটার্ন দিলে আপনি ২৮ বছরে গিয়ে ১.৪ কোটি টাকা আয় করতে পারবেন ৷ এবং শুধু তাই নয়, ৩০ বছরে আপনি ১.৮ কোটি এবং ৩৫ বছরে ৩.২৪ কোটি টাকার মালিক হতে পারবেন ৷ সুতরাং, প্রতিদিন যদি এই সামান্য টাকা করে জমানো যায়, তাহলেই ৩০ বছর পরেই আপনি কোটি টাকার মালিক হতে পারবেন।