করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। পাশাপাশি আরও জানিয়েছে, গতকাল থেকে এখনও পর্যন্ত দেশে ১৫৫৩ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন। যার কারণে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের তালিকার শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজারেরও বেশি। মৃত্যু হয়েছে ২২৩ জনের। অন্যদিকে এখনও পর্যন্ত উদ্বেগ রয়েছে দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ, তেলাঙ্গনাকে নিয়ে।  

 

সোমবার কেন্দ্রীয় যুগ্ম স্বাস্থ্য সচিব লব আগ্রলওয়াল জানিয়েছেন লকডাউনের আগে দেশে করোনাভাইকরাসে আক্রান্তের সংখ্যা তিন থেকে চার  দিন অন্তর দ্বিগুণ হচ্ছিল বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে ৭ থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে। ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত ১৮টি রাজ্যের দেওয়া তথ্য় বিশ্লেষণ করে এই তথ্যই সামনে এসেছে বলেই দাবি করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্ব্য মন্ত্রকের তরফ থেকে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও সন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। 

তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রক এদিন করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় ভারতের আরও সাফল্যের কথা তুলে ধরেছে। বলা হয়েছে করোনা মুক্ত প্রথম রাজ্য হিসেবে উঠে এসেছে গোয়ার নাম। পাশাপাশি গত ১৪ দিনে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি এমন জেলার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৯ টিতে। পদুচেরি, কোডাগু, গাড়ওয়ালসহ একাধিক জেলায় গত ২৮ দিন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রক।  

আরও পড়ুনঃ করোনা সংকটের মাঝেই ভারতকে হুঁশিয়ারি চিনের, নতুন এফডিআই নীতির সমালোচনা ...

আরও পড়ুনঃ লকডাউন আমান্য করেই রীতিমত বিপর্যয় ডেকে আনছে, মুম্বই, কলকাতা, জয়পুরকে সতর্ক করল

আরও পড়ুনঃ করোনা মোকিবালায় সাফল্য কুড়িয়ে লকডাউন ইস্যুতে কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে কেরল, হোটেল আর যান চলাচলে ...

লকডাউনে আপাতত কোনও শিথিলতা দেওয়া হবে না বলেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে।