করোনায় আক্রান্ত হননি তো? স্রেফ আতঙ্কেই এবার আত্মহত্যা করলেন পঁচাশি বছরের এক বৃদ্ধ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর ২৪ পরগণার বারাসতে। হতবাক মৃতের পরিবারের লোক ও পাড়া-প্রতিবেশীরা। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্ক এবার রাজ্য়ের বন্দরেও, নিজামুদ্দিন থেকেই ফিরেই আক্রান্ত সেখানের এক কর্মী

মৃতের নাম নিতাই ঘোষ চৌধুরী। বারাসতের উত্তর নবপল্লীর লটারি কালিবাড়ি এলাকায় থাকতেন তিনি। লকডাউনের কারণে আর অনেকের মতোই ঘরবন্দি হয়ে দিন কাটছিল ওই বৃদ্ধের। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছিল আতঙ্কও। শুধু তাই নয়, বেশ কয়েক দিন ধরে আবার জ্বর ও সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন নিতাই। অন্তত তেমনই দাবি করেছেন পরিবারের লোকেরা। হাসপাতালে গিয়ে কি স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে ছিলেন তিনি? স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, হাসপাতালে না গেলেও, বাড়িতে আলাদাভাবে থাকা শুরু করেছিলেন ওই বৃদ্ধ। আত্মহত্যা করেন শুক্রবার ভোরে। প্রথমে টের পাননি পরিবার লোকেরা। বেলায় যখন ঘটনাটি জানাজানি হয় , তখন চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর দেওয়া থানায়। বারাসত হাসপাতালে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: গায়ে লাঠি বেঁধে বহরমপুরের প্রৌঢ়র সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং পালন, ভাইরাল হল ভিডিও

আরও পড়ুন: গাঁজা বিক্রিকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কাণ্ড, সংঘর্ষ থামাতে লাঠিচার্জ পুলিশের
 

আরও পড়ুন: লকডাউন সফল করতে 'গান্ধীগিরি', ফুল-মালা নিয়ে রাস্তায় নামল পুলিশ

উল্লেখ্য, এ রাজ্যে লকডাউন উপেক্ষা করে যেমন এখনও রাস্তায় বেরোচ্ছে অনেকেই, তেমনি করোনা নিয়ে রীতিমতো  আতঙ্কেও ভুগছেন কেউ কেউ। বুধবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদায় এক সপ্তাহ ঘরবন্দি থাকার পর আত্মহত্যা করেন এক বৃদ্ধ। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন,  করোনা আতঙ্কে বাড়ির বাইরে বেরতো না পেরে মানসিক অবসাদ গ্রাস করেছিল, টিভিতে খবর দেখে উদ্বেগও বাড়ছিল তাঁর। আর তাতেই ঘটেছে এমন মর্মান্তিক ঘটনা।