এলাকায় এখনও পর্যন্ত কেউ করোনা আক্রান্ত হননি। কিন্ত আতঙ্ক যে পিছু ছাড়ছে না! খাস কলকাতাতেই এবার পাড়া 'লক' করে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বহিরাগতদের প্রবেশ রুখতে বাঁশ ও গাছের ডাল বেঁধে আটকে দেওয়া হল রাস্তা। ঘটনাটি ঘটেছে তারাতলার জিরজিরা বাজার এলাকায়।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত আধিকারিকের মা, জানতেই কলকাতায় ইউকো ব্যাঙ্কের একটি শাখা বন্ধ করল স্বাস্থ্যভবন

করোনা সতর্কতায় লকডাউন চলছে। কিন্তু তাই বলে শহরে রাস্তা-ঘাট যে একেবারেই সুনশান, তা কিন্তু নয়। বরং লকডাউন অপেক্ষা করে এখনও রাস্তায় বেরোচ্ছেন অনেকেই। অতি উৎসাহী কেউ কেউ তো আবার সকাল-সন্ধে রীতিমতো আড্ডাও দিচ্ছেন পাড়ার মোড়ে, চায়ের দোকানে। তারাতলার জিরজিরা বাজার এলাকার ছবিটা অবশ্য অন্যরকম। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরোচ্ছেন না স্থানীয় বাসিন্দারা। দোকান-পাঠও বন্ধ। তাহলে ভয়টা কীসের? স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, তাঁরা খুব একটা রাস্তায় বেরোচ্ছেন না ঠিকই। কিন্তু পাড়ার ভিতর দিয়ে বাইরের লোকেরা বেহালার পর্ণশ্রী এলাকায় যাতায়াত করেন।  তাতেই করোনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। শুক্রবার সকালে জিনজিরা বাজার বন্দাল পাড়া ৩ নম্বর গেট ও জিনজিরা বাজার ব্যাম সমিতি এলাকায় ঢোকার রাস্তাটি বন্ধ করে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। রাস্তায় মাঝ-খানে বেঁধে দেওয়া হয় বাঁশ ও গাছের ঘুড়ি। আপাতত আর এলাকায় ঢুকতে পারবেন না বহিরাগতরা।


আরও পড়ুন: এমআর বাঙ্গুরের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৫ রোগীর মৃত্যু, কারণ জানতে অপেক্ষা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টের

আরও পড়ুন: করোনার কোপে চৈত্র সেল, ১০০০ কোটি টাকার বেশি আর্থিক ক্ষতি মুখে ব্যবসায়ীরা

এদিকে শুক্রবার সকালে বেহালার পর্ণশ্রী এলাকায় নিজের বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন এক বৃদ্ধা।  করোনা নয় তো? আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। খবর পেয়ে বাড়িটি সিল করে দিয়েছে পুলিশ। অসুস্থ ওই বৃদ্ধাকে ভর্তি করা হয়েছে এম আর বাঙুর হাসপাতালে। পরিবারে লোকেদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজারহাটে কোয়ারেন্টাইটে।  পুলিশ সূত্রে খবর, সপ্তাহ দুয়েক আগে নাকি ওই বৃদ্ধা বেঙ্গালুরু থেকে ফিরেছেন।